• সোমবার, ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
রিভিউ : অপো এফ১১ প্রো

ফাইল ছবি

তথ্যপ্রযুক্তি

রিভিউ : অপো এফ১১ প্রো

  • শাহাদাত হোসেন
  • প্রকাশিত ১৫ মে ২০১৯

সম্প্রতি দেশের বাজারে উন্মোচন করা হয়েছে অপো এফ১১ প্রো স্মার্টফোনটি। উন্মোচনের অল্প সময়ের মধ্যেই স্মার্টফোনপ্রেমীদের চাহিদা ও পছন্দ পূরণের মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে অপোর এ স্মার্টফোন। 

স্বল্প আলোতেও ডিএসএলআর ক্যামেরার মানের ফটোগ্রাফি ও পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফিতে ফোনটি রীতিমতো দক্ষ। কোনো ধরনের আলোকচিত্রী আর এডিটর ছাড়াই অসাধারণ ছবি আউটপুট দেওয়ার সক্ষমতা, ফোনের সম্মুখভাগের প্রায় পুরোটাজুড়েই ডিসপ্লে স্থাপনে স্লাইডিং প্ল্যাটফর্মে ক্যামেরা প্রতিস্থাপন আর সর্বোচ্চ ৯০ দশমিক ৯ শতাংশ বডি টু ডিসপ্লে রেশিওতে ৬ দশমিক ৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্যানারমিক ডিসপ্লে আছে এতে।

প্রকৃতি থেকে উদ্বুদ্ধ হয়ে থান্ডার ব্ল্যাক ও অরোরা গ্রিন কালার ভ্যারিয়েশনে গ্লসি ফিনিশিং ফোনটিকে দিয়েছে দুর্দান্ত প্রিমিয়াম লুক। ফোনের সুরক্ষা দিতে অপোর নিজস্ব ডিজাইনে প্রস্তুত সিলিকন ব্যাক কাভার এতটাই দারুণ যে এতে ফোনের সৌন্দর্য হারায়নি মোটেই।

উল্লেখ্য, এফ১১ প্রোতে রয়েছে স্লাইডিং ক্যামেরা প্ল্যাটফর্ম। ফলে ফোনের সম্মুখভাগের পুরোটাজুড়েই স্থাপন করা সম্ভব হয়ে প্যানারোমিক ডিসপ্লে। ফলে গেমিং কিংবা ভিডিও স্ট্রিমিংয়ের ক্ষেত্রে সত্যিকারের ফুলস্ক্রিনের স্বাদ পাওয়া যাবে এই ফোনে।

তরুণদের কাছে ‘সেলফি এক্সপার্ট’ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড অপো নতুন আনা এই ফোনটির মাধ্যমে নিজেদের রাজত্ব বিস্তৃত করতে চায় ‘পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফিতে’ আর তাই এতে থাকা আল্ট্রা হাই স্ট্যান্ডার্ড ৪৮ মেগাপিক্সেল ও ৫ মেগাপিক্সেল ডুয়েল ক্যামেরা সিস্টেম, এফ১.৭৯ অ্যাপারচার, বল-বিয়ারিং ক্লোজড-লুপ ভিসিএম, ৬পি লেন্স ও ১/২.৩ ইঞ্চি ইমেজ সেন্সরের সমন্বয়ে এই ক্যামেরা অধিক আলো ধারণ করতে সক্ষম। ডে-লাইট থাকা অবস্থায় এই স্মার্টফোন দুটি ৪৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা এইচডি ছবি আউটপুট দিতে সক্ষম। স্বল্প আলোতে এফ১১ এর ‘টেট্রাসেল টেকনোলজি’ পাশাপাশি থাকা প্রতি ৪টি পিক্সেলকে ১টি ১.৬ মাইক্রোমিটার পিক্সেলে পরিণত করে, এর থেকে পাওয়া ডাটা বিশ্লেষণ করে ও সমন্বয় করে ফটোসেন্সিটিভ পিক্সেলের আকার দ্বিগুণ করে ফেলার মাধ্যমে উজ্জ্বল ও ‘লো-নয়েজ’ নাইট পোর্ট্রেট তুলতে সক্ষম।

এছাড়া এই ফোনটিতে রয়েছে অপোর নতুন উদ্ভাবন আল্ট্রা ক্লিয়ার নাইট মোড ও কালার ম্যাপিং প্রযুক্তি। তাই স্বল্প আলোতেও লো-নয়েজ ও সঠিক স্কিনটোন যুক্ত পোর্ট্রেট ছবি তুলতে সক্ষম এ ফোনটি।

শুধু যে ভিজ্যুয়াল দিকটিকেই প্রাধান্য দিয়েছে অপো এমনটি ঘটেনি মোটেই। সদ্য বাজারে আসা এই ফোনটিতে রয়েছে মিডিয়াটেক হেলিও পি৭০ চিপসেট, ৬ গিগাবাইট র্যাম মালি জি-৭২ এমপি৩ জিপিইউ। ফলে পাবজি, ফিফা আর অ্যাসফাল্ট ৮-এর মতো গেমগুলোও অনায়াসে খেলা গেছে ফোনটিতে। গেমিং কিংবা ছবি প্রসেসিং, কোনো কাজেই ফোনের সক্ষমতা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না এর ব্যবহারকারীদের।

অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে এতে রয়েছে অপোর নিজস্ব কালার ওএস ৬.০ ইন্টারফেস যুক্ত অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাই। তাই এফ১১ প্রোতে পাওয়া যাবে দুর্দান্ত ইউজার এক্সপেরিয়েন্স।

স্মার্টফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম পাওয়ার ব্যাকআপ। এফ১১ প্রোতে থাকা ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি দৈনন্দিন সাধারণ ব্যবহারের ক্ষেত্রে টানা ১৫.৫ ঘণ্টা ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। এছাড়া ভিডিও দেখবার ক্ষেত্রেও প্রায় ১২ ঘণ্টা চলবে এক চার্জেই আর পাবজি বা ফিফার মতো হেভিডিউটি গেমগুলোর ক্ষেত্রেও এই ফোন প্রায় সাড়ে ৫ ঘণ্টা চলতে সক্ষম। তবে ব্যাটারি নয়, এফ১১ প্রো-এর সবচেয়ে অকর্ষণীয় দিকটি হচ্ছে এতে থাকা ভুক-থ্রি চার্জিং প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তিতে মাত্র ৮০ মিনিটেই ফোন ফুলচার্জ করা সম্ভব। তাই পাওয়ার ব্যাকআপ সম্পর্কে ন্যূনতম দুশ্চিন্তাও করতে হবে না এর ব্যবহারকারীদের।

এত সব দারুণ ফিচারযুক্ত দারুণ এই ফোনটি বাজারে পাওয়া যাবে ৩৬ হাজার ৯৯০ টাকায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads