• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক ৬ ঘণ্টা অচল

বেতন চেয়ে শ্রমিকদের অবরোধ

সংগৃহীত ছবি

শ্রমশক্তি

বেতন চেয়ে শ্রমিকদের অবরোধ

ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক ৬ ঘণ্টা অচল

  • গাজীপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৮ আগস্ট ২০১৮

ঈদের আগে চলতি মাসের অর্ধেক বেতন চেয়ে গাজীপুর সদর উপজেলার হোতাপাড়া এলাকায় মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন অ্যালিগেন্টস গ্রুপের তিনটি কারখানার শ্রমিকরা। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এই অবরোধে অচল হয়ে পড়ে যান চলাচল। ১০ দিনের বেতনের আশ্বাসে ৬ ঘণ্টা পর শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নিলে হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন ঈদে ঘরমুখো যাত্রী ও বিভিন্ন যানবাহনের চালকরা।

পুলিশ ও শ্রমিকরা জানান, আগস্ট মাসের ১৫ দিনের বেতনভাতার দাবিতে সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে রাখা হয়। পরে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (জিসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে সরানোর ব্যবস্থা করেন। তিনি স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় আগামী রোববার আগস্ট মাসের ১০ দিনের বেতন পরিশোধের আশ্বাস দিয়েছেন।

কারখানার শ্রমিক জাহাঙ্গীর আলম, নাদিম মিয়া ও ফিরোজ জানান, জুলাই মাসের বেতন আগস্টের প্রথম সপ্তাহে পেয়ে বাসা ভাড়া, দোকান খরচ ও অন্যান্য জায়গায় খরচ হয়ে গিয়েছে। যে পরিমাণ বোনাস দিচ্ছে তা দিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদে খরচ করা সম্ভব নয়। তাই তারা কারখানা কর্তৃপক্ষকে আগস্ট মাসের ১৫ দিনের বেতন পরিশোধের অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ বেতন না দেওয়ার ব্যাপারে তাদের সিদ্ধান্তে অটল থাকায় এ আন্দোলন।

গাজীপুর ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার সালেহ উদ্দিন আহমেদ জানান, শ্রমিকরা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে পুরাতন টায়ারে ও ঝুটে অগ্নিসংযোগ করে অবরোধ করে রাখে। এতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক স্থবির হয়ে পড়ে। এ সময় সড়কের উভয় পাশের ২৩ কিলোমিটার এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয় এবং ভোগান্তিতে পড়েন কয়েক হাজার যাত্রী। বিকাল ৪টার দিকে অবরোধ তুলে নিলে গাড়ি চলাচল শুরু হয়। এদিকে উত্তেজিত শ্রমিকরা কয়েকটি যানবাহনে হামলা চালায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

পরিবার ও স্বজন নিয়ে ঈদের ছুটি কাটাতে ঢাকার ব্যবসায়ী মুজিবুল হক সকালে ঢাকা থেকে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের উদ্দেশে রওনা দেন। কিন্তু যানজটে আটকে থাকেন বিকাল পর্যন্ত। প্রচণ্ড গরমে তার শিশুসন্তান অসুস্থ হয়ে পড়ার কথা জানিয়েছেন তিনি। আরেক যাত্রী জানান, সাত মাসের সন্তান নিয়ে গরমে বাসে বসে থাকা কঠিন ছিল। তবুও কিছু করার ছিল না। মায়ের চিকিৎসা করাতে মালয়েশিয়া থেকে দেশে আসা প্রবাসী আশরাফুল ইসলাম জানান, দীর্ঘ সময় যানজটে আটকে তার মায়ের শারীরিক অসুস্থতা আরো বেড়েছে।

শেরপুর থেকে কোরবানির গরু নিয়ে রাজধানী ঢাকায় যাচ্ছিলেন শহিদুল ইসলাম নামের এক গরু ব্যবসায়ী। তিনি জানান, সকাল ৯টা থেকে যানজটে আটকে ছিলেন। ময়মনসিংহের গৌরীপুর থেকে ডিম নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেওয়া ট্রাক চালক আফজাল হোসেন জানান, প্রচণ্ড রোদ-গরমের মধ্যে যানজটে আটকে থাকায় গাড়িতেই অনেক ডিম নষ্ট হয়েছে।

আলম এশিয়া পরিবহনের বাস চালক শরিফুল ইসলাম জানান, ময়মনসিংহ থেকে সকাল সাড়ে ৮টায় রওনা দিয়ে মহাসড়কের ভবানীপুরে যানজটে আটকা পড়লে যাত্রীরা নেমে যায়। পরে তিনি গাড়ি ঘুরিয়ে ফের ময়মনসিংহের উদ্দেশে রওনা দেন।

অপরদিকে অ্যালিগেন্টস গ্রুপের সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার বজলুর রহমান জানান, প্রশাসন ও শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনা করে চলতি মাসের ১০ দিনের বেতন পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

জিসিসি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম জানান, কারখানার মালিকপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের আশ্বাস দেওয়ায় তারা মহাসড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শিল্প পুলিশের পুলিশ সুপার সিদ্দিকুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. নূরে আলম সিদ্দিক, গাজীপুরের জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাসেল শেখ, জয়দেবপুর থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম, হোতাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির উপপরির্দশক মো. রফিকুল ইসলাম রফিক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads