• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
খালেদার দুই মামলা জামিনের শুনানি ৩১ জুলাই

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া

সংরক্ষিত ছবি

আইন-আদালত

খালেদার দুই মামলা জামিনের শুনানি ৩১ জুলাই

  • আদালত প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১২ জুলাই ২০১৮

মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্মদিন পালন ও যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানিয়ে গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়ে জাতির মানহানির অভিযোগে ঢাকায় দায়ের করা দুই মামলায় জামিন না পেয়ে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া দায়রা জজ আদালতে আবেদন করেছেন।

গতকাল বুধবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েসের আদালতে সাবেক প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে জামিনের আবেদন করেন তার আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার। গত ৫ জুলাই ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবিব ও খুরশীদ আলম এ দুই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন নাকচ করে দেওয়ার পর আইনজীবীরা দায়রা জজ আদালতে গেলেন। আবেদন দাখিল করার পর খালেদা জিয়ার আইনজীবী হান্নান ভূঁইয়া বলেন,  সকালে এ মামলার জামিন আবেদন করা হয়। আদালত আগামী ৩১ জুলাই শুনানির দিন রেখেছেন। মানচিত্র, পতাকা ও মুক্তিযুদ্ধকে বিকৃতির অভিযোগ। মামলার বিবরণে জানা যায়, বাংলাদেশের মানচিত্র, জাতীয় পতাকা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করার অভিযোগে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৭-এ মানহানির মামলা করেন বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এবি সিদ্দিকী। এ মামলায় ২০১৭ সালের ১২ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়। এর পর গত ১২ এপ্রিল আইনজীবীরা এ মামলায় তার জামিন চান। গত ১৭ মে আদালত তৃতীয় দফায় সময় পিছিয়ে আদেশের জন্য ৫ জুলাই আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন। এ অবস্থায় তার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।

মিথ্যা তথ্য দিয়ে জন্মদিন পালনের অভিযোগে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী জহিরুল ইসলাম ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২২-এ মামলাটি করেন। এ মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। এর পর গত ২৫ এপ্রিল এ মামলায় খালেদা জিয়া জামিন চেয়ে আবেদন করেন। কিন্তু জামিন না দিয়ে ১৭ মে শুনানির দিন নির্ধারণ করেন আদালত। পরে ওই তারিখে তার গ্রেফতারি পরোয়ানা কার্যকরের আদেশ দিয়ে ৫ জুলাই জামিনের বিষয়ে আদেশের দিন ধার্য করেন। এ অবস্থায় তার জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads