• মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
কুমিল্লার নাশকতার মামলায় খালেদার জামিন বহাল

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া

সংরক্ষিত ছবি

আইন-আদালত

কুমিল্লার নাশকতার মামলায় খালেদার জামিন বহাল

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৩ আগস্ট ২০১৮

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রল বোমা হামলার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত চেয়ে সরকারের আবেদনে কোনো আদেশ দেননি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে তার জামিন বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সরকারের আবেদনে সাড়া না দিয়ে গতকাল রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ ‘নো অর্ডার’ আদেশ দেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে এ দিন ধার্য করা হয়েছিল।

আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন ও মাহবুবউদ্দিন খোকন। সরকার পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

গত ৬ আগস্ট বিচারপতি একেএম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এসএম মজিবুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ কুমিল্লার বিশেষ ক্ষমতা আইনে করা নাশকতার মামলায় খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দেন। ওই জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করলে পরদিন চেম্বার জজ বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে বৃহস্পতিবার শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। ওইদিন শুনানি শেষে আদেশের জন্য ১২ আগস্ট দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ।

গত ১ জুলাই এ মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখিয়ে জামিনের আবেদনের শুনানির জন্য ৬ আগস্ট দিন ধার্য রাখেন কুমিল্লার আদালত। এরপর গত ২৩ জুলাই হাইকোর্ট এক আদেশে বিচারিক আদালতে এই মামলায় খালেদা জিয়ার করা জামিনের আবেদন ২৬ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। এর প্রেক্ষিতে কুমিল্লার বিশেষ ট্রাইব্যুনাল খালেদা জিয়ার জামিন নামঞ্জুর করে আদেশ দেন। এই আদেশের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া আপিল করে জামিন চান। শুনানি শেষে ছয় মাসের জামিন পান খালেদা জিয়া। এর আগে এই মামলাটি বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন খালেদা জিয়া। আবেদনটির শুনানি চলছে।

২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুরে একটি বাসে পেট্রল বোমা ছুড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে দগ্ধ হয়ে আট যাত্রী মারা যান। আহত হন ২০ জন। এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুজ্জামান বাদী হয়ে পরদিন ৭৭ জনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা করেন।

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা :

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াসহ ১১ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। রাজধানীর বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-২-এর বিচারক এএইচএম রুহুল ইমরান এ দিন ধার্য করেন।

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি শাহবাগ থানায় দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি উত্তোলন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণে ঠিকাদার নিয়োগে অনিয়ম এবং রাষ্ট্রের ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ক্ষতি ও আত্মসাতের অভিযোগে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। একই বছর ৫ অক্টোবর ১৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads