• মঙ্গলবার, ২৬ মার্চ ২০১৯, ১২ চৈত্র ১৪২৪
ads
১৪ মামলায় মইনুলের জামিন বহাল, মুক্তিতে বাধা নেই

ব্যারিষ্টার মইনুল হোসেন

সংগৃহীত ছবি

আইন-আদালত

১৪ মামলায় মইনুলের জামিন বহাল, মুক্তিতে বাধা নেই

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৭ জানুয়ারি ২০১৯

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে করা মানহানির ১৪ মামলায় হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। ওই জামিন স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনের ওপর আজ বৃহস্পতিবার ‘নো অর্ডার’ আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান।

এ আদেশের ফলে শেরপুর, কুড়িগ্রাম, ভোলা, ঝিনাইদহ, রাজবাড়ী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ, কক্সবাজার, মাগুরা, নড়াইল, চট্টগ্রাম, যশোর ও নেত্রকোনায় মইনুলের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মোট ১৪ মামলায় জামিন বহাল রয়েছে।

মইনুলের আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন জানান, তার কারামুক্তিতে আর কোনো বাধা নেই।

এর আগে গত ১৩ জানুয়ারি হাইকোর্ট ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে ১৫টি মানহানির মামলায় ৬ মাসের জামিন দেয়। এর মধ্যে ১৪টি মামলায় জামিন স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন জানায় রাষ্ট্রপক্ষ।

এই আবেদনের ওপর বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মমতাজ উদ্দিন ফকির এবং মইনুল হোসেনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন।

খন্দকার মাহবুব হোসেন জানান, ‘মইনুল হোসেন এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে মন্তব্য করায় ২৩টি মামলা হয়। এর মধ্যে একটি ডিজিটাল আইনে ও বাকি ২২টি মামলা হয় মানহানির। মানহানির অভিযোগে বিভিন্ন আদালতে দায়ের করা ১৫টি মামলায় ব্যারিস্টার মইনুলকে হাইকোর্ট জামিন দেন। এর মধ্যে ১৪টি মামলায় জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন জানায় রাষ্ট্রপক্ষ। কিন্তু চেম্বার আদালত ‘নো অর্ডার’ আদেশ দিয়েছেন। ফলে এসব মামলায় তার জামিন বহাল রয়েছে। তবে তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া আরও তিনটি মামলায় গ্রেপইররী পরোয়ানা জারি না করায় এখন তার কারামুক্তিতে আর কোনো বাধা থাকছে না।’

জানা যায়, ২০১৮ সালের ১৬ অক্টোবর একাত্তর চ্যানেলের একটি টক শোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি লাইভে যুক্ত হওয়া ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে প্রশ্ন করেন- ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি আলোচনা চলছে, আপনি সদ্য গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে এসে জামায়াতের প্রতিনিধিত্ব করছেন কি না?’

মইনুল হোসেন এ প্রশ্নের জবাব দেওয়ার একপর্যায়ে মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করেন। তার এই মন্তব্যের পর মাসুদা ভাট্টি নিজে একটি মানহানির মামলা করেন। এছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলায় একটি দলীয় সমর্থকরা তার বিরুদ্ধে মামলা করেন। এ অবস্থায় রংপুরে করা মানহানির এক মামলায় গত বছরের ২২ অক্টোবর রাতে রাজধানীর উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসা থেকে মইনুল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads