• শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
মামলা দায়ের, চালক গ্রেফতার

ছবি : সংগৃহীত

আইন-আদালত

চাকায় পিষে যাত্রী হত্যার দায়ে

মামলা দায়ের, চালক গ্রেফতার

  • গাজীপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১১ জুন ২০১৯

বাসভাড়া নিয়ে বিতণ্ডার জেরে গত রোববার গাজীপুর সদরের বাঘের বাজার এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বাস থেকে ফেলে এক যাত্রীকে চাকায় পিষ্ট করে হত্যার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় সোমবার বাসের চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার আলম এশিয়া বাসের চালক মো. রোকন উদ্দিনকে (৩৫) সোমবার দুপুরে ময়মনসিংহের কংস নদী থেকে গ্রেফতার হয়েছে। তিনি ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট উপজেলার লতিফপুর নয়াপাড়া এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে।

জয়দেবপুর থানার এসআই মো. আবদুর রহমান জানান, রোববার বাস থেকে ফেলে যাত্রী হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করার পরই বাসচালক রোকন মাকে নিয়ে ময়মনসিংহের ধোবাউরা ও হালুয়া ঘাট থানার সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাচ্ছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযানে নামে। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গ্রেফতার এড়ানোর জন্য কংস নদীতে ঝাঁপ দেন। পুলিশও নদীতে ঝাঁপ দিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। বাসযাত্রী সালাহ উদ্দিন হত্যা ঘটনায় জড়িত বাসের অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

নিহত যাত্রী সালাহ উদ্দিন (৩৫) স্থানীয় আতাউর রহমান মেম্বার বাড়িতে ভাড়া থেকে স্কটেক্স অ্যাপারেলস নামের পোশাক কারখানার গাড়ি চালাতেন। তিনি ঢাকার আলু বাজার এলাকার মৃত শাহাব উদ্দিনের ছেলে। সালাউদ্দিন রোববার সস্ত্রীক ময়মনসিংহ থেকে আলম এশিয়া পরিবহনের বাসে গাজীপুরের বাসায় ফেরার পথে ভাড়া নিয়ে বচসার একপর্যায়ে গাড়ি থেকে ফেলে দিয়ে ওই বাসের চাকাতেই পিষ্ট করে হত্যা করেন বাসচালক। ঘটনাস্থলের পাশে মেম্বার বাড়ির আমতলী এলাকায় মহাসড়কের ওপর বাসটি ফেলে রেখে চালক ও  সহকারী পালিয়ে যান। 

জয়দেবপুর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, নিহতের ছোট ভাই মো. জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে রোববার রাতে বাসের চালক, হেল্পার, কন্ডাক্টার ও মালিকসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে জয়দেবপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। চালক রোকনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।  

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads