• বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৫
ads
বাগেরহাটে কিশোরী হত্যায় জড়িত ৩জন আটক

মাদ্রাসা ছাত্রী হিরা আক্তারকে (১২) শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার ঘটনার সাথে জড়িত বৃদ্ধ দম্পতিসহ ৩ জন

ছবি : বাংলাদেশের খবর

আইন-আদালত

বাগেরহাটে কিশোরী হত্যায় জড়িত ৩জন আটক

  • বাগেরহাট প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৪ জুলাই ২০১৯

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে চাঞ্চল্যকর মাদ্রাসা ছাত্রী হিরা আক্তারকে (১২) শ্বাসরোধ করে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার ঘটনার সাথে জড়িত বৃদ্ধ দম্পতিসহ ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আজ রোববার বিকেলে বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় প্রেস ব্রিফিং এই তথ্য জানান।

আটককৃতরা হিরা আক্তারকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। তারা হলেন, পশ্চিম বহরবুনিয়া গ্রামের মুক্তার মৃধা (৭৫), তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৬৫) এবং নাতী হাসান রশিদ মৃধা (১৩)। 

পুলিশ সুপার জানান, হিরা আক্তারের মা এই হত্যা মামলার বাদী নাসিমা বেগমকে ঘরের ভিতর মুক্তার মৃধা গিয়ে ঝাপটে ধরে। তিনি বৃদ্ধ মুক্তার মৃধাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে জুতা দিয়ে ৪/৫টি বাড়ি দেন এবং তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগমকে নালিশ জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ঘটনার ৪ দিন পর ঘরে কেউ না থাকার সুযোগে তারা তিনজনে মিলে হিরাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে।

পুলিশ সুপার আরো জানান, ঘটনার পর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়। মামলা দায়ের পর পুলিশ আসামীদের আটকের পাশাপাশি ব্যাপক তদন্ত শুরু করে। তদন্তের এক পর্যায় বাড়ি থেকে মনোয়ারা বেগম (৬৫) এবং নাতী হাসান রশিদ মৃধাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। পরে মোংলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে মুক্তার মৃধাকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ২ জুলাই (মঙ্গলবার) বিকেল ৫টার দিকে পশ্চিম বহরবুনিয়া গ্রামের গাউছ শেখের নিজ বসতঘরে বিবস্ত্র অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায় তার মেয়ে হিরা আক্তারকে। তার মুখমণ্ডলে কালো দাগ ও গলায় গামছা লাগানো ছিল। সে স্থানীয় ছাপড়াখালী গাজীরঘাট দাখিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ছিল। তার পিতা গাউছ শেখও একই মাদরাসার নৈশ প্রহরী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads