• মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
সান্তাহারে বাদল হত্যা মামলার মূল আসামি রেজাউল গ্রেপ্তার

গ্রেপ্তাকৃত আসামী রেজাউল করিম (৩৫)

ছবি : বাংলাদেশের খবর

আইন-আদালত

বউ বদলের ঘটনায় হত্যাকাণ্ড

সান্তাহারে বাদল হত্যা মামলার মূল আসামি রেজাউল গ্রেপ্তার

  • বগুড়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ৩০ জুলাই ২০১৯

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহার লকু পশ্চিম কলোনী এলাকায় পরকীয়ার জেরে বাসায় ঢুকে ছুরিকাঘাতে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আড়াই মাস পর মুল আসামী রেজাউল করিম (৩৫) কে গ্রেপ্তার করেছে ফাঁড়ি পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার ভোরে নওগাঁর শেখপাড়ায় আসামীর নির্মানাধীন বাসার পাশে একটি বাড়ী থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত রেজাউল নওগাঁর সদর উপজেলার বালুডাঙ্গা তকতাতারু হাজী আমবাগানের মৃত আফতাব আলীর ছেলে।

সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আব্দুল ওয়াদুদ জানান, আসামী রেজাউল করিম ও নিহত বাদল দুই বছর পূর্বে মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধে একাধিক মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে জেলখানায় থাকাকালে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে। তারা জামিনে মুক্ত হয়ে বন্ধুত্বের সুবাদে একে অপরের বাসায় যাতায়াত করে। এক পর্যায়ে রেজাউল ও বাদল একে আপরের স্ত্রীর প্রতি আকৃষ্ট হওয়ায় পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরকীয়া সম্পর্কের সুবাদে গত এক বছর আগে বাদলের স্ত্রী ২ সন্তানের জননী নার্গিস বেগমকে রেজাউল করিম পালিয়ে নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে। আবার রেজাউল করিমের গর্ভবতি স্ত্রী ২ সন্তানের জননী ফাতেমা বেগমকে মাত্র ৬ মাসের মাথায় অপর বন্ধু বাদল পালিয়ে নিয়ে বিয়ে করে। এতে দু’জনের মধ্যে বউ বদলের ঘটনা ঘটে। কিন্তু বাদল বিয়ে করার পর তার স্ত্রী ফাতেমা পূর্বের স্বামী রেজাউল করিমের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রাখায় বাদল ক্ষিপ্ত হয় এবং রেজাউল করিমের সাথে বিরোধে জড়িয়ে পড়ে। এতে রেজাউল সন্তান দেখার অজুহাতে বাদলের ভাড়া বাসায় গিয়ে গালিগালাজ ও হুমকি দিয়ে যায়। এরপর গত ১৫ মে রাত ৮টায় রেজাউল করিম বাদলের ভাড়া বাসায় প্রবেশ করে তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ওই রাতেই বাদলকে হাসপাতালে নেয়ার পর সে মারা যায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads