• মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
ads
আবরার হত্যায় আরও ৩ জন গ্রেপ্তার

আবরার ফাহাদ

আবরারের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে নেওয়া

আইন-আদালত

আবরার হত্যায় আরও ৩ জন গ্রেপ্তার

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৮ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার বুয়েটের ওই তিন ছাত্রকে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে আবরার হত্যায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করলো পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা ব্যক্তিরা হলেন- শামসুল আরেফিন রাফাত (২১), মো. মনিরুজ্জামান মনির (২১) ও মো. আকাশ হোসেন (২১)। এর আগে সোমবার রাতে ১০ জনতে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মাসুদুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গ্রেপ্তার তিনজন মামলার এজহারভুক্ত আসামি।

আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় গ্রেপ্তার বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, সদস্য মুনতাসির আল জেমি, মো. মুজাহিদুর রহমান মুজাহিদ এবং মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির ও একই বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্নাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত রোববার রাত ৩টার দিকে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের দোতলায় ওঠার সিঁড়ির মাঝ থেকে আবরারের লাশ উদ্ধার করে চকবাজার থানা পুলিশ। এ রাতে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে আবরারকে পেটান বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের কিছু নেতা। এই ঘটনায় আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে সোমবার ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত ৯ জন ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করে পুলিশ। নিহত আবরার বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরেবাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads