• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬
ads
সালমানের সঙ্গে হোয়াইট হাউজের ফোনালাপ ফাঁস

সৌদি আরবের রাজকুমার মোহাম্মদ বিন সালমান

ছবি : সংগৃহীত

মধ্যপ্রাচ্য

খাশোগি হত্যার এক মাস

সালমানের সঙ্গে হোয়াইট হাউজের ফোনালাপ ফাঁস

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৩ নভেম্বর ২০১৮

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে নিয়ে সৌদি আরবের রাজকুমার মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে হোয়াইট হাউজের ফোনালাপ ফাঁস হয়েছে। খাশোগি নিখোঁজের এক সপ্তাহের মাথায় উভয়পক্ষের মধ্যে এ ফোনালাপ হয়। যদিও তখন পর্যন্ত খাশোগিকে হত্যার কথা সৌদি আরবের পক্ষ থেকে স্বীকার করা হয়নি। খাশোগি হত্যার ঠিক এক মাসের মাথায় গতকাল শুক্রবার বিষয়টি প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম সারির গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট ও নিউইয়র্ক টাইমস।

৯ অক্টোবরের মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা জারেড কুশনার এবং দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের সঙ্গে ফোনালাপকালে সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান বলেন, খাশোগি মিসরের নিষিদ্ধ ঘোষিত দল মুসলিম ব্রাদারহুডের সদস্য ছিলেন। এ সময় যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি আরবের মিত্রতা বজায় রাখায় আহ্বান জানানো হয়। যদিও সৌদি আরবের পক্ষ থেকে এ ফোনালাপের বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে।

এদিকে খাশোগির পরিবারের পক্ষ থেকেও তার মুসলিম ব্রাদারহুডের যুক্ত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে ওয়াশিংটন পোস্টে এক বিবৃতি প্রদান করা হয়েছে। এতে তারা জানিয়েছে, খাশোগি নিজে গত কয়েক বছর ধরে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। জামাল খাশোগি কোনোদিক থেকে ক্ষতিকর ব্যক্তি ছিলেন না। অন্যভাবে তাকে দোষারোপ করা হাস্যকর হবে।

ওয়াশিংটন পোস্টে নিয়মিত কলাম লেখক জামাল খাশোগি ঠিক এক মাস আগে গত ২ অক্টোবর তুরস্কে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলেটের মধ্যেই নিখোঁজ হন। বিন সালমানের কঠোর সমালোচক খাশোগিকে কনস্যুলেটের মধ্যে হত্যা করা হয়েছে বলে শুরু থেকেই তুরস্কের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল। শুরুতে এ কথা সৌদি আরবের পক্ষ থেকে অস্বীকার করা হলেও পরবর্তী সময়ে এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নেওয়া হয়। তবে এ ঘটনায় সৌদি রাজপরিবারের কোনো যোগসাজশ নেই বলে দাবি করা হয়। কিন্তু খাশোগিকে কী কারণে এবং কীভাবে হত্যা করা হয়েছিল সে বিষয়ে এখনো স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি দেশটির পক্ষ থেকে। এমনকি খাশোগির মৃতদেহ নিয়ে কী করা হয়েছে সে ব্যাপারেও মুখ খোলেনি সৌদি।

এমনকি এ ঘটনায় সালমানের কোনো যোগসাজশ নেই উল্লেখ করে এর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সৌদির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে বরখাস্তসহ ১৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে সৌদি আরবে বিচার করা হবে বলে জানানো হয়েছে। শুধু তাই নয়, গত সপ্তাহে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের সঙ্গে বিন সালমানের বৈঠকের পর এ হত্যাকাণ্ডে সৌদি আরবের সরাসরি জড়িত থাকার অভিযোগ করা থেকেও দূরে সরে গেছে ইস্তাম্বুল। বৈঠকের পর খাশোগি হত্যাকাণ্ডে একে অন্যকে সাহায্য চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে একমত হওয়ার কথা গণমাধ্যমকে জানান তারা। এমনকি গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও সৌদি আরবের সঙ্গে মিত্রতা অক্ষুণ্ন রাখার ইঙ্গিত দিয়েছেন। যদিও মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র রবার্ট পালাদিনো গত বৃহস্পতিবার খাশোগির দেহাবশেষ তার পরিবারের সদস্যদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান। 

যুবরাজের সঙ্গে ইসরাইলি প্রতিনিধিদলের বৈঠক

যুক্তরাষ্ট্রের ইসরাইল সমর্থক কয়েকজন মার্কিন প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেছেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। রিয়াদ ও তেল আবিবের মধ্যে সম্পর্ক বেড়ে চলার ভেতরেই গত বহস্পতিবার বিন সালমানের সঙ্গে এ প্রতিনিধিদলটি সাক্ষাৎ করে বলে আলজাজিরার খবর। বৈঠকে ছিলেন লেখক ও ইসরাইলপন্থি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা জাশুয়ার পরিচালক জোয়েল সি. রোজেনবার্গ এবং বায়তুল মুকাদ্দাসে ফ্রেন্ড অব যায়ন মিউজিয়ামের প্রতিষ্ঠাতা মাইক ইভান। রিয়াদে অনুষ্ঠিত দুই ঘণ্টার এ বৈঠকে ইসরাইল, ফিলিস্তিন ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads