• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
‘দ্বিতীয় স্যাটেলাইট ও তৃতীয় যমুনা সেতুর পরিকল্পনা চলছে’

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান

সংগৃহীত ছবি

জাতীয়

‘দ্বিতীয় স্যাটেলাইট ও তৃতীয় যমুনা সেতুর পরিকল্পনা চলছে’

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৭ জানুয়ারি ২০১৯

পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, প্রথম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পর আবার দ্বিতীয় উপগ্রহ ছাড়ার পরিকল্পনা করছি। দ্বিতীয় যমুনা সেতুর পর তৃতীয় যমুনা সেতু করার পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেট প্রেসক্লাবে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি প্রেসক্লাবের একজন সম্মানীত সদস্য। পরিকল্পনা মন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ায় তাকে সংবর্ধনা দেয় সিলেট প্রেসক্লাব।

প্রেসক্লাব সভাপতি ইকরামুল কবিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ।

পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, পৃথিবীতে বাঙালি রাষ্ট্র একটি, সেটি হচ্ছে এই বাংলাদেশ। ইতিহাসকে অস্বীকার করার ক্ষমতা কারও নেই। কিন্তু যে নবযাত্রা শুরু হলো তাঁকে স্বাগত জানিয়ে আমাদের সামনে যেতে হবে। সেই পুরাতন অন্ধকার যুগের যেনো পুনরাবৃত্তি না হয়।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমার এই বিশ্বাস জন্মেছে যে তাঁর নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে না, বরং দূরন্তগতিতে এগিয়ে যাবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের এখন উদীয়মান সময়। এখন দুরন্তগতিতে এগিয়ে যাবার পালা। আমরা রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছি।

এর আগে দুপুরে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে স্নাতক ২০১৮-১৯ সেশনের ‘বি’ ইউনিটের নবীন শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, এই ক্যাম্পাস আমাদের গর্বের স্থান। জ্ঞান বিজ্ঞান ও প্রগতিশীলতা চর্চার মাধ্যমে তোমরা দেশকে এগিয়ে নিবে। আমাদের বিজ্ঞান, মেডিক্যালসহ জ্ঞানবিজ্ঞানের নানা শাখা-প্রশাখা রয়েছে। এই শাখা-প্রশাখা বিস্তারে সবাই মিলে কাজ করতে হবে। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বিশ^বিদ্যালয়গুলোতে গবেষণার জন্য বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, সরকার গবেষণার মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয়গুলো তুলে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। এর মাধ্যমে আমরা চাইলে বিজ্ঞান সমৃদ্ধ, প্রযুক্তি সমৃদ্ধ একটি দেশ গড়তে পারবো।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইলিয়াস উদ্দিন বিশ্বাস।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads