• সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৫
ads
অটিজম সচেতনতায় অগ্রদূত

সায়মা ওয়াজেদ পুতুল

ছবি : সংগৃহীত

জাতীয়

অটিজম সচেতনতায় অগ্রদূত

  • এস এম মুকুল
  • প্রকাশিত ০৪ এপ্রিল ২০১৯

একসময় অটিজম ছিল একটি অবহেলিত জনস্বাস্থ্য ইস্যু। এ সম্পর্কে সমাজে নেতিবাচক ধারণা ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মেয়ে ও স্কুল সাইকোলজিস্ট সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের নিরলস প্রচেষ্টায় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অটিজম বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি ২০০৭ সালে এ বিষয়ে দেশে কাজ শুরু করেন। সায়মা ওয়াজেদ পুতুল এই অবহেলিত জনস্বাস্থ্য ইস্যুতে তার অবদানের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বীকৃতিও পেয়েছেন। UNISDR প্রণীত আন্তর্জাতিক নির্দেশিকাগুলোর মধ্যে মানসিক স্বাস্থ্য এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিদের সমস্যাগুলোর অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করার জন্য সায়মা ওয়াজেদ পুতুল বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাবিষয়ক মুখপাত্র নিযুক্ত হয়েছেন। তিনি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু)-এর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের অটিজমবিষয়ক শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নিযুক্ত।
অটিজম এবং নিউরো ডেভেলপমেন্টাল ডিজঅর্ডার বিষয়ক বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যাডভাইজরি কমিটির চেয়ারপারসন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুল দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় অঞ্চলে অটিজমবিষয়ক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিত্ব করছেন।
সায়মা ওয়াজেদ বাংলাদেশে স্বাস্থ্য এজেন্ডায় অটিজমকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে আন্তরিক প্রচেষ্টা চালান এবং অটিজম স্পেকট্রাম ডিজঅর্ডার এবং অন্যান্য মানসিক ও নিউরো ডেভেলপমেন্টাল ডিজঅর্ডারে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক দৃষ্টি আকর্ষণে সহায়তা করেন। সায়মা ওয়াজেদ তার বিভিন্ন ভূমিকা এবং যোগ্যতায় এএসডি বিষয়ে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। তিনি ২০১১ সালের জুলাই মাসে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় অটিজম নেটওয়ার্ক গড়ে তোলেন এবং মেন্টাল হেলথ বিষয়ে হু’র গ্লোবাল এক্সপার্ট অ্যাডভাইজরি প্যানেলের একজন সদস্য হন। সায়মা ওয়াজেদ সূচনা ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন। মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে এই ফাউন্ডেশন কাজ করে। এটি হু’র মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক এক্সপার্ট অ্যাডভাইজরি প্যানেলের সদস্য। তিনি ২০১১ সালে একটি আঞ্চলিক সম্মেলনের আয়োজন করে অবহেলিত এ বিষয়টিকে সামনে নিয়ে আসেন। তার এ প্রচেষ্টার ফলে নিউরো ডেভেলপমেন্টাল ডিজঅ্যাবলিটি প্রটেকশন ট্রাস্ট অ্যাক্ট ২০১৩ পাস হয়। তার দেওয়া প্রস্তাবের আলোকে জাতিসংঘ কয়েকটি প্রস্তাব গ্রহণ করে। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে হু’র দেওয়া পাবলিক হেলথ অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন। তিনি বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক কমিটি ও নেটওয়ার্কের নেতৃত্ব দেন। তিনি টরন্টোর অন্টোরিও ফিজিওলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন এবং অটিজম বিষয়ক এবং গ্লোবাল অটিজম বাংলাদেশ বিষয়ক এনডিডি’র একজন আন্তর্জাতিক পরামর্শক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads