• শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
ads
হিজড়া ও বেদে সম্প্রদায়ের বাংলা নববর্ষ উদযাপন

সংগৃহীত ছবি

জাতীয়

হিজড়া ও বেদে সম্প্রদায়ের বাংলা নববর্ষ উদযাপন

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৫ এপ্রিল ২০১৯

হিজড়া ও বেদে সম্প্রদায়ের অংশগ্রহণে বাঙালি সংস্কৃতির ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠান বর্ষবরণ উদযাপিত হয়েছে। বাংলা বছরের প্রথম দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের ল্যাবরেটরি মিলনায়তন নাটমণ্ডল প্রাঙ্গণে  এ অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয়। এবারের আয়োজনে নতুন মাত্রা যুক্ত হয়েছে উত্তরণ ফাউন্ডেশন ও রিথিংক বাংলাদেশের পরিকল্পনায় হিজড়া সম্প্রদায়ের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা 'সবার উপরে মানুষ সত্য '।

বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন, ডিন, কলা অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম, ডিআইজি (অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ডিসিপ্লিন), বাংলাদেশ পুলিশ ও চেয়ারম্যানউত্তরণ ফাউন্ডেশন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. আহমেদুল কবির।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম, ডিআইজি (অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ডিসিপ্লিন), বাংলাদেশ পুলিশ ও চেয়ারম্যান উত্তরণ ফাউন্ডেশন বলেন, এখানে যারা আছেন প্রায় সবাই স্বীকার করবেন যে আমরা তাদেরকে ভাল চোখে দেখি না। আমরা মনে করি তারা আমাদের সমাজের উচ্ছিষ্ট। আমাদের বিভিন্ন ধরনের দৃষ্টান্তে এইগুলো দেখি। কিন্তু তারা যে মানুষ এবং তাদেরও যে মনআছে, তারাও যে আমাদের মত রক্তে মাংসে গঠিত মানুষ। তাদের সংস্কৃতি দিয়েই কিন্তু আমাদের বাঙালির সংস্কৃতি সমৃদ্ধ হয়েছে। তাদের সাপ খেলা, বানর খেলা এবং বিভিন্ন ধরনের কসরত তারা বিভিন্ন সময় দেখিয়ে থাকে।

তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে দু-জন আছে অনন্যা এবং নিশাত তারা বিদেশ থেকে ট্রেনিং নিয়ে আসছে হেয়ার প্লেসিংয়ের উপরে। বাংলাদেশে অন্য কোনো হেয়ার ড্রেসারে এই প্রতিষ্ঠান থেকে এরকম বিশ্ব মানের কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে ট্রেনিং আছে বলে আমার জানা  নেই।

অনুষ্ঠানটিতে হিজড়া সম্প্রদায়ের শিল্পীরা বিভিন্ন পরিবেশনা উপস্থাপন করেন। এর পাশাপাশি সাপের খেলা ও বাঁদর খেলা নিয়ে হাজির হয় বেদে সম্প্রদায়ের লোকেরা। অনুষ্ঠানটিতে বিশেষ আর্কষণ ছিল গ্রাম বাংলার জনপ্রিয় ও বাংলাদেশের জাতীয় খেলা কাবাডিতে থাকা হা-ডু-ডু।

অনুষ্ঠানটির মাধ্যমে হিজড়া ও বেদে সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যকে মূলধারায় সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads