• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
সরকারি হিসাবে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ৬০

ছবি : সংগৃহীত

জাতীয়

সরকারি হিসাবে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ৬০

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চলতি বছর ডেঙ্গুজনিত কারণে মৃত্যুর মিছিলে আরো তিনজনের নাম যুক্ত হলো। এ নিয়ে সরকারি হিসাবে ডেঙ্গুজনিত কারণে ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) ডেথ রিভিউ কমিটি এই তিনটি মৃত্যু ডেঙ্গুজনিত কারণে হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১০১ জনের মৃত্যু পর্যালোচনা করে ডেঙ্গুজনিত কারণে ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে উল্লেখ করেছে। বাকি ৪১ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুজনিত কারণে হয়নি বলে ডেথ রিভিউ কমিটি নিশ্চিত হয়েছে। তবে বেসরকারি তথ্যমতে, চলতি বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ২০০ জনে পৌঁছাল।

আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক ও বর্তমানে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা প্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআরবি) উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মাহমুদুর রহমান বলেন, হাসপাতাল থেকে ডেঙ্গুজনিত কারণে মৃত্যু ঘোষণার পর নতুন করে পর্যালোচনার কোনো যৌক্তিকতা নেই। কারণ জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ডেঙ্গু শনাক্ত করা হয়েছে। এরপর ওই রোগীর মৃত্যু হলে সেটিকে ডেঙ্গুজনিত কারণই বলতে হবে। সংক্রামক ব্যাধির ক্ষেত্রে এটিই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ম।

তবে এটি মানতে নারাজ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আইইডিসিআর। হাসপাতাল থেকে ঘোষণার পর তারা সেটি পর্যালোচনা করে মৃত্যু নিশ্চিত করছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্যানুযায়ী, গত শনিবার সকাল থেকে গতকাল সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ৭৬১ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকায় ৩১৪ জন এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ৪৪৭ জন ভর্তি হয়েছেন।

চলতি মাসের ১ থেকে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যথাক্রমে ৯০২ জন, ৮৬৫, ৭৮৩, ৮২০, ৭৮৮, ৭৯৩ ও ৬০৭ জন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

চলতি বছর এ পর্যন্ত ৭৬ হাজার ৫১৪ জন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭৩ হাজার ৯১ জন চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল ছেড়েছেন। দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৩ হাজার ২২৬ জন রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে রাজধানীর ৪১ সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ১ হাজার ৫৯২ জন এবং ঢাকার বাইরে বিভাগীয় ও জেলা সদর হাসপাতালে ১ হাজার ৬৩৪ জন রোগী চিকিৎসাধীন।

এদিকে খুলনায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে খুলনায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হলো। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেঙ্গু বিভাগের চিকিৎসক ডা. শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস জানান, মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলায় আশিকুজ্জামান নামে এক যুবক ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গতকাল ভোর সাড়ে ৫টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে নেওয়া হয়। বেলা সাড়ে ১১টায় তিনি মারা যান।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. এ এস এম আবদুর রাজ্জাক জানান, খুলনায় এ পর্যন্ত বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা থেকে আসা ১ হাজার ২০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়। এসব রোগীদের মধ্যে ৯৪৩ জন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র নিয়েছেন। তিনি বলেন, বর্তমানে খুলনার সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৭৭ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ১৮ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads