• শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
পেঁয়াজের দাম যারা বাড়িয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: হাছান

ফাইল ছবি

জাতীয়

পেঁয়াজের দাম যারা বাড়িয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: হাছান

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৭ নভেম্বর ২০১৯

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির জন্য দায়ী বিবেকহীন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

আজ রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক স্মরণ সভায় বক্তৃতাকালে বলেন, ‘জনগণকে জিম্মি করে ব্যবসা করা কোনো নীতি হতে পারে না এবং এটা গ্রহণযোগ্যও নয়।’

মওলানা ভাসানীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ভাসানী ঐক্যজোট (বিওজে) এবং ন্যাপ ভাসানী যৌথভাবে এ স্মরণ সভার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঐক্যজোটের আহ্বায়ক বঙ্গদ্বীপ এম এ ভাসানী।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িত দুষ্কৃতকারীদের খুঁজে বের করতে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো মাঠে রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নেবে।’

হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন যে, শিগগিরই পেঁয়াজের দাম কমিয়ে আনা হবে কারণ সরকার রান্নার কাজে ব্যবহৃত এই প্রয়োজনীয় সামগ্রীটির যথেষ্ট গুরুত্ব দেয়। তিনি আরো বলেন, শিগগিরই দেশে উৎপন্ন পেঁয়াজ বাজারে আসবে।

মন্ত্রী বলেন, ‘টিসিবি দেশের বিভিন্ন এলাকায় সাশ্রয়ী মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করছে এবং এর দাম শিগগিরই কমে যাবে।’

পেঁয়াজ নিয়ে বিএনপি’র বিক্ষোভ কর্মসূচির উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বিএনপিকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য ইস্যুতে রাজনীতি করা ছেড়ে দিয়ে তারা পেঁয়াজকে পূজি করায় আমি বিএনপি এবং এর মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

তিনি বলেন, সরকার বিরোধী দলগুলোর কাছ থেকে গঠনমূলক সমালোচনা আশা করে।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, বিরোধী দলগুলো সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করবে। তবে সমাজের বিভিন্ন সেক্টরে সরকারের সাফল্য নিয়েও তাদের কথা বলা উচিত।’

তিনি বলেন, গত সাড়ে ১০ বছরে বাংলাদেশ সরকারের নজিরবিহীন উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন বিশ্ব নেতৃবৃন্দ, বিখ্যাত অর্থনীতিক ও নোবেল বিজয়ীরা। দেশের প্রখ্যাত রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, মওলানা ভাসানী কৃষক- শ্রমিক ও সাধারণ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সারাটা জীবন কাজ করেছেন। তিনি বলেন, রাজনীতি হচ্ছে একটা ‘ব্রত’। তিনি আরো বলেন, ‘ভাসানী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাদের সমসাময়িক নেতারা ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করেননি।’ তথ্যমন্ত্রী বলেন, তারা সাধারণ মানুষের কল্যাণ এবং একই সঙ্গে সমাজ ও দেশকে বদলে দেয়ার জন্য রাজনীতি করেছেন।

তিনি বলেন, ‘কিন্তু এখন সমাজের প্রতিটি সেক্টরে এমনকি রাজনীতিতেও আমরা বিকিকিনী দেখছি। রাজনীতিকরা নিজেদের স্বার্থে এক দল থেকে অন্য দলে যোগদান করছেন। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, রিজভী আহমেদ ও মওদুদ আহমেদসহ বিএনপি’র বহু রাজনীতিক মওলানা ভাসানীর রাজনীতি করেছেন। তিনি বলেন, তারা ক্ষমতার স্বাদ নেয়ার জন্য বিএনপিতে যোগ দেন।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগ ঢাকা দক্ষিণ ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার ও এম এ করিম এবং বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads