• বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
ads

জাতীয়

জিয়াউর রহমানের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

  • প্রকাশিত ৩০ মে ২০২০

আজ ৩০ মে। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৮১ সালের এই দিন রাতে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে একদল সৈনিকের হাতে নিহত হন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। বিএনপি দিবসটিকে তার শাহাদাতবার্ষিকী হিসেবে পালন করে আসছে।

জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী পালন করতে বিএনপি বুধবার ১২ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।  কর্মসূচিগুলো ৩০ আজ মে থেকে শুরু হয়ে ১০ জুন শেষ হবে। এগুলো সবই করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পালন করা হবে।

জিয়া ১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি বগুড়ার গাবতলীর বাগবাড়ীতে মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মনসুর রহমান কলকাতায় একজন কেমিস্ট হিসেবে সরকারি চাকরিতে নিয়োজিত ছিলেন। শৈশব ও কৈশোরের একটি সময় গ্রামে কাটিয়ে জিয়া বাবার সঙ্গে কলকাতায় এবং দেশ ভাগের পর করাচি চলে যান। শিক্ষাজীবন শেষে ১৯৫৩ সালে পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমি কাকুলে অফিসার ক্যাডেট হিসেবে ভর্তি হন। ১৯৫৫ সালে তিনি কমিশন লাভ করেন। বিএনপির দাবি, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পাকিস্তানি বাহিনী যখন নিরস্ত্র জনতার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে জিয়াউর রহমানই তখন চট্টগ্রাম কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। মুক্তিযুদ্ধে তিনি একটি সেক্টরের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। বীরত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ পান বীরোত্তম খেতাব।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ‘এক বিশেষ প্রেক্ষাপটে’ জিয়াউর রহমান রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ৩ নভেম্বর ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে সামরিক অভ্যুত্থানে খোন্দকার মোশতাক আহমদ ক্ষমতাচ্যুত হলে সেনাবাহিনীর তৎকালীন উপপ্রধান মেজর জেনারেল জিয়াকে গৃহবন্দি করা হয়। একপর্যায়ে সিপাহি-জনতার মিলিত প্রয়াসে জিয়াকে মুক্ত করা হয় এবং নেতৃত্বের হাল ধরেন তিনি।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads