• শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ৮ মাঘ ১৪২৭
সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত শিবচরের সেই বোরউদ্দিন এখন ভারতে

সংগৃহীত ছবি

জাতীয়

সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত শিবচরের সেই বোরউদ্দিন এখন ভারতে

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৭ নভেম্বর ২০২০

মাদারিপুরের শিবচরের সেই বোরউদ্দিন এখন ভারতে অবস্থান করছে। ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে পদ্মা সেতুর মাদারীপুরের প্রান্তের জমি অধিগ্রহণের বাধাদানকারী, প্রশাসন ও পদ্মাসেতু নিয়ে অপ্রচারকারী হিসেবে চিহ্নিত বোরহানকে গ্রেপ্তারের জন্য হন্যে হয়ে খুঁজছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে সে এখন ভারতে অবস্থান করছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। সেথানে গিয়েও বোরহান বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে । তবে সে দেশে আসা মাত্রই গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা।

একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা থেকে প্রাপ্ত তথ্যে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময়ে পদ্মসেতুর জাজিরা প্রান্তের মাগরখন্ডে বোরহান উদ্দিনের ৫৫ বিঘা জমি ছিল। সরকার সেটি অধিগ্রণের সিদ্ধান্ত নেয়। তৎকালীন সময়ে জমির মূল্য হিসেবে প্রায় ১০০ কোটি টাকার মতো হয় । সরকারীভাবে সেটি দেয়ারও সিদ্ধান্ত হয় । কিন্তু ওই সময়ে এ সিদ্ধান্ত না মেনে পদ্মা সেতু সম্পর্কে অপপ্রচার ও প্রশাসনকে বিষেদাগার করতে থাকে সে। বারবার তাকে এ বিষয়ে সতর্ক করা হলেও এর বিরোধীতা থেকে ফিরে আসেনি। এমনকি সরকারী কাজকে বাধাগ্রস্থ করতে নানা রকম ষড়যন্ত্র করতেও থাকে। এক পর্যায়ে তাকে গ্রেপ্তারও করা হয়। গ্রেপ্তারের পর জামিনে বেরিয়ে এসে তার ষড়যন্ত্র অব্যাহত থাকে। ঢাকার কামরাঙ্গীচর এলাকায় এসে সরকার বিরোধী একটি গোষ্ঠীর সঙ্গে মিশে গিয়ে সেখান থেকেও নানা অপপ্রচার চালাতে থাকে। পুলিশ আবারো তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালায়। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে সে ভারতে চলে যায়। এখন ভারতে বসেও সে সরকার বিরোধী নানা রকম অপপ্রচার চালাচ্ছে।

গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা বলছেন, বর্তমান সময়ে সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যারা অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদের মধ্যে বোরহানও একজন। গত বছর পদ্মা সেতু নিয়ে বোরহান নানা ধরনের অপপ্রচার চালিয়েছে। সরকারী বিরোধী এক গোষ্ঠীর সঙ্গে আঁতাত করে স্থানীয় প্রশাসন, এলাকার আওয়ামী লীগের কিছু নেতার বিরুদ্ধে সে চরম বিষেদাগার করেছিল। এক পর্যায়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হলেও পরবতীতে সে জামিনে বেরিয়ে এলাকার বাহিরে থেকে ওই গোষ্টির সঙ্গে হাত মিলিয়ে অপপ্রচার অব্যাহত রাখে।

কর্মকর্তারা বলছেন, কিছুদিন আগে তারা নিশ্চিত হয়েছেন বোরহান এখন ভারতে রয়েছেন। সেখানেও রাস্ট্রের বিরুদ্ধে অপপ্রচার অব্যাহত রেখেছেন। কর্মকর্তারা বলেন, দেশের বাইরে যারা বর্তমান সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে নানারকম ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার চালায় তাদের মধ্যে বোরহানও অন্যতম। ভারতে বসে পদ্মা সেতু নিয়ে তিনি এখনো কটাক্ষ করেন। বর্তমান সময়ে দেশের বাইরে থাকা ব্যক্তিদের উপর নজরদারী বাড়ানো হয়েছে উল্লেখ করে কর্মকর্তারা বলেন, ইতিমধ্যে তাদের ব্যাপারে ইমিগ্রেশনে তথ্য দেয়া রয়েছে। দেশে আসামাত্রই তারা গ্রেপ্তার হবেন। এক্ষেত্রে বোরহানও বাদ পড়বেন না।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, বোরহান উদ্দিনের ব্যাপারে আমমাদের কাছে ফাইল রয়েছে। আমরা তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অনেক চেষ্টাও করেছি। কিন্ত তাকে আমরা পরে পাইনি। তবে এখন কোথায় আছে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, যতটুকু জানা যায় সে এখন ভারতে অবস্থান করছে। তার ব্যাপারে দেশের বিভিন্ন ইমিগ্রেশনে তথ্য দিয়েছি। দেশে মাত্রেই যেন আইনের আওতায় আনা যায় সে ব্যাপারে আমরা পদক্ষেপ নিয়ে রেখেছি।

মাদারিপুর জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, বোরহান উদ্দিনের ব্যাপারে পুলিশের পাশাপাশি অন্যান্য বাহিনীর নিকটও তথ্য রয়েছে। দেশের বাইরে বসে যারা নানা ষড়যন্ত্র মিথ্য বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে তাদের মধ্যেও সে রয়েছে। দেশে আসলে অবশ্যেই আইনের মুখোমুখি  হতে হবে তাকে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads