• শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত, নিহত ৬

উজান থেকে নেমে আসা পানি ও টানা বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত

সংগৃহীত ছবি

প্রাকৃতিক দুর্যোগ

মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত, নিহত ৬

  • মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৮ জুন ২০১৮

উজান থেকে নেমে আসা পানি ও টানা বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। এতে পানিবন্দি অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন ৩ লাখের বেশী মানুষ। ৪ দিনে পানিতে ডুবে ৬ জনের নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এখন পর্যন্ত নিখোঁজ আছেন আরও ২ জন।

কিছু এলাকায় সামান্য পানি কমলেও বহু এলাকায় দেখা দিয়েছে বন্যা। উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢল ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে মানুষের বসতভিটা। বন্যার আতংক জেলার সবখানে। এদিকে বানভাসিদের মধ্যে চলছে চরম খাদ্য সংকট।

বন্যায় মৌলভীবাজার সদর, কুলাউড়া, কমলগঞ্জ ও রাজনগরসহ চারটি উপজেলার ৩০টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভায় প্রায় ৪০ হাজার ২০০ পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নষ্ট হয়েছে দুই হাজার ৯৬০ হেক্টর আউশ ধান। জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

এদিকে জেলায় মনু ও ধলাই নদীর পানি বৃদ্ধির কারণে বন্যা প্রতিরক্ষা বাঁধের ২৫ স্থানে ভাঙন দেখা দিয়েছে। পানিবন্দি মানুষদের উদ্ধার করে ৫০টি আশ্রয়কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে খাবার রান্না করে বিতরণ করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক জানান, সেনাবাহিনীর চারটি টিম বন্যাদুর্গত এলাকায় কাজ করছে। তারা পানিবন্দিদের উদ্ধারে ১৮টি স্পিডবোট ব্যবহার করছে। সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে ৭৪টি মেডিকেল টিম বন্যাকবলিত এলাকায় কাজ করছে। রেডক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থাও কাজ করছে।

এবারের ভয়াবহতা আগের সব বন্যার রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। ১৯৮৮ কিংবা ২০০৪ সালের বন্যার ভয়াবহতা এখনো ভুলেননি এ অঞ্চলের মানুষ। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের অভিযোগ, বারবার ভাঙন দেখা দিলেও মনু নদীর দু’পাড় রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads