• সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬
ads
বন্যায় মাদারগঞ্জে ২০০ কোটি টাকার ক্ষতি

ছবি : বাংলাদেশের খবর

প্রাকৃতিক দুর্যোগ

বন্যায় মাদারগঞ্জে ২০০ কোটি টাকার ক্ষতি

  • আবদুল লতিফ লায়ন, জামালপুর
  • প্রকাশিত ৩০ জুলাই ২০১৯

জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় এবারের বন্যায় প্রায় ২শ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। ১৯৮৮ সালের বন্যার চেয়ে বেশি বন্যার কারণে উপজেলা একটি পৌরসভাসহ ৭টি ইউনিয়নের সবকটি গ্রাম বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হয়ে ব্যাপক ধ্বংসলীলায় পরিনিত হয়। বন্যায় ভেঙেছে পাকারাস্তা, বাঁধ, কাঁচা সংযোগ সড়ক, ঘরবাড়ি, ব্রিজ কালভার্ট।

ক্ষতি হয়েছে উঠতি ফসল পাট, আউস, বীজতলা, সবজি আর ফলজবাগান, পুকুরসহ অসংখ্য বৃক্ষরাজি। গ্রামের পর গ্রামে কৃষকের স্বপ্নের সাজানো গৃহস্থলী তছনছ করে দিয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, গত ১০ বছরের মাদারগঞ্জ উপজেলায় যে উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছিলো তা একেবারে তছনছ হয়ে গেছে।

সংসদ সদস্য সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের স্বপ্নে লালিত উন্নয়নগুলি বন্যায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মাদারগঞ্জ-জামালপুর সড়কের বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি সাধিতসহ উপজেলার ৩শ ৫০ কিলোমিটার পাকা রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই সড়কে বড় বড়গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

এছাড়া মাদারগঞ্জ-বগুড়ার সারিয়াকান্দি মহা-সড়কের কামারিয়া নামকস্থানে একটি বৃহৎ ব্রিজের এপ্রোচ সড়ক ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ভেঙে গেছে আরো ৩৫টি ব্রিজ ও এপ্রোচ। এছাড়া মাদারগঞ্জ উপজেলার সাথে সকল ইউনিয়ন গ্রোথ সেন্টারের যোগাযোগ একেবারে ভেঙে পড়েছে।

অটোরিকশার চালক মনিরুজ্জামান বলেন, মাদারগঞ্জের রাস্তাঘাট যেভাবে ভেঙেছে তাতে মনে হয় এ রাস্তা দিয়ে আমাদের আর গাড়ি চালতে পারবে না। রাস্তা ভেঙে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় প্রায়ই গাড়ি উল্টে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটছে।

রিকশা চালক আরিফুল জানান, বন্যা আসার সাথে সাথে অটোরিকশা চালানো বন্ধ করে দিয়েছি। রাস্তার অবস্থা দেখে এখন আর রিকশা নিয়ে বাইরে আসি না। অটোরিকশা উল্টে পড়ে যায়। এখন ছেলেমেয়ে নিয়ে খুবই কষ্টে আছি। রাস্তা ঠিক না হওয়া পর্যন্ত কষ্ট করতেই হবে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জাহিদ হাসান জানান, মাদারগঞ্জ উপজেলার সাম্প্রতিক বন্যায় মাদারগঞ্জ উপজেলার প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে ২ লাখ ৬০ হাজার লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে গেছে ৫০ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা, ১ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ, ১ হাজার ৮শ ৪৫ হেক্টর জমির ফসল, অসংখ্য বাড়িঘর।

উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এর প্রকৗশলী মনিরুজ্জামান জানান, এলজিইডির ২শ কিলোমিটার পাকা রাস্তা ও ৮টি ব্রিজ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এসব ক্ষয়ক্ষতির পরিমান প্রায় ২শ কোটি টাকা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমিনুল ইমলাম জানান, সাম্প্রতিক বন্যায় মাদারগঞ্জ উপজেলায় সংসদ সদস্যের নির্দেশে ব্যাপক ত্রাণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। মাদারগঞ্জ-মেলান্দহের সংসদ সদস্য সাবেক বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাঘাট, ব্রিজকালভার্ট ও অবকাঠামো দ্রুত সংস্কার করার নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় আগামী ফসল না আসা পর্যন্ত ত্রাণসহ বিভিন্ন সাহায্য অব্যাহত থাকবে। তিনি জরুরী ভিত্তিতে রাস্তাঘাট সংস্কার করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads