• বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

সংসদ

বাণিজ্যমন্ত্রীর দাবি

চাল–পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৫ জানুয়ারি ২০১৮

চাল ও পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক পর্যায়ে এসেছে বলে দাবি করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। সোমবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরে বাণিজ্যমন্ত্রী এই দাবি করেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠিত হয়।
সরকারি দলের সাংসদ সুবিদ আলী ভূইয়ার এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চালের দাম বেড়েছিল। কারণ উত্তরাঞ্চল ও হাওরাঞ্চলে বন্যায় ফসলহানি হয়েছিল। মৌসুম এলেও দাম কমেনি এটা ঠিক নয়। চালের দাম কমাতে বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে তোফায়েল বলেন, চালের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৯ টাকা। তিনি বলেন, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। এবার বন্যার কারণে সেখানে উৎপাদন কম হয়েছে। বাংলাদেশেও বন্যার কারণে উৎপাদন কম হয়েছে। পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকার ওপর থেকে এখন ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় নেমে এসেছে। চাল ও পেঁয়াজের দাম ধীরে ধীরে স্বাভাবিক পর্যায়ে নেমে এসেছে।
সরকারি দলের আরেক সাংসদ মো. আবদুল্লাহর প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের উদ্যোগ ও দেশে নতুন পেঁয়াজের উৎপাদন শুরু হওয়ায় স্থানীয় বাজারে পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক পর্যায়ে পৌঁছেছে।
সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য লুৎফা তাহেরের প্রশ্নের জবাবে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববাজারে খাদ্যের দাম কমার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশেও খাদ্যশস্যের দাম কমছে এবং বর্তমানে স্থিতিশীল পর্যায়ে আছে। বর্তমানে চালের দাম প্রতি কেজিতে ৪ থেকে ৭ টাকা কমেছে এবং আটার দাম সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়েছে।

১৬৫ দেশে কর্মী পাঠানো হচ্ছে 
স্বতন্ত্র সাংসদ রহিম উল্লাহর প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে ১৬৫টি দেশে কর্মী পাঠানো হচ্ছে। সরকারের নানামুখী পরিকল্পনার ফলে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মী পাঠানোর সংখ্যা উত্তরোত্তর বাড়ছে। ২০১৬ সালে বিদেশগামী কর্মীর সংখ্যা ছিল সাত লাখ ৫৭ হাজার ৭৩১। ২০১৭ সালে এটি বেড়ে ১০ লাখ ৮ হাজার ৫২৫ জনে দাঁড়িয়েছে।
প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক প্রশ্নের জবাব দেন।
স্বতন্ত্র সাংসদ রুস্তম আলী ফরাজীর প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ১৬টি দেশে কর্মী পাঠাতে সর্বোচ্চ অভিবাসন ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে সিঙ্গাপুরে ২ লাখ ৬২ হাজার ২৭০ টাকা, সৌদি আরবে ১ লাখ ৬৫ হাজার, মালয়েশিয়ায় ১ লাখ ৬০ হাজার, লিবিয়ায় ১ লাখ ৪৫ হাজার ৭৮০ টাকা, বাহরাইনে ৯৭ হাজার ৭৮০ টাকা, আরব আমিরাতে ১ লাখ ৭ হাজার ৭৮০ টাকা, কুয়েতে ১ লাখ ৬ হাজার ৭৮০ টাকা, ওমানে ১ লাখ ৭৮০ টাকা, ইরাকে ১ লাখ ২৯ হাজার ৫৪০ টাকা, কাতারে ১ লাখ ৭৮০ টাকা, জর্ডানে ১ লাখ ২ হাজার ৭৮০ টাকা, মিসরে ১ লাখ ২০ হাজার ৭৮০ টাকা, মালদ্বীপে ১ লাখ ১৫ হাজার ৭৮০ টাকা, ব্রুনাইয়ে ১ লাখ ২০ হাজার ৭৮০ টাকা ও লেবাননে ১ লাখ ১৭ হাজার ৭৮০ টাকা। 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads