• মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
জাহান্নাম থেকে মুক্তির দশক শুরু

ছবি : সংগৃহীত

ধর্ম

জাহান্নাম থেকে মুক্তির দশক শুরু

  • সৈয়দ ফয়জুল আল আমীন
  • প্রকাশিত ২৭ মে ২০১৯

আজ থেকে রমজানের শেষ দশক তথা নাজাতের দশক শুরু। রমজানের প্রথম দুটি দশকের গুরুত্ব ও ফজিলত অসংখ্য; তবে এই শেষ দশকের গুরুত্ব ও ফজিলত আরো অনেক গুণ বেশি। রসুলুল্লাহ (সা.) রমজানের শেষ ১০ দিনের ব্যাপারে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। হাদিস শরিফে এ দশককে ‘ইতকুম মিনান নার’ বা জাহান্নাম থেকে মুক্তির দশক বলা হয়েছে। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত হয়েছে- তিনি বলেছেন, ‘রমজান মাসের শেষ দশক শুরু হলেই নবী করিম (সা.) তাঁর কোমর শক্ত করে বেঁধে নিতেন। এ সময়ের রাতগুলোতে তিনি জাগ্রত থাকতেন এবং ঘরের লোকদের সজাগ করতেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘রসুল (সা.) রমজান মাসের শেষ দশকে ইবাদত-বন্দেগির কাজে এতই কষ্ট স্বীকার করেছেন, যা অন্য সময় করতেন না।’

হজরত জয়নব বিনতে সালমা (রা.) বলেন, ‘রমজান মাসের শেষ দশকে তাঁর ঘরের লোকদের মধ্যে রাত জেগে ইবাদত করতে পারে এমন কাউকেও ঘুমাতে দিতেন না এবং সবাইকে জেগে থেকে ইবাদত করার জন্য প্রস্তুত করতেন।’ এ দশকের কিছু বিশেষ আমল রয়েছে। যেমন ইতেকাফ, শবেকদর। রসুল (সা.) আরো বলেন : ‘আমি কদরের রাত্রির সন্ধানে প্রথম ১০ দিন ইতিকাফ করলাম। এরপর ইতিকাফ করলাম মধ্যবর্তী ১০ দিন। অতঃপর ওহি প্রেরণ করে আমাকে জানানো হলো যে তা শেষ ১০ দিনে। সুতরাং তোমাদের মধ্যে যে ব্যক্তি ইতিকাফ পছন্দ করে, সে যেন ইতিকাফে বসে।’ (মুসলিম : ১৯৯৪)

আজ (২১ রমজান) ইসলামের শেষ খলিফা হজরত আলীর (রা.) শাহাদাত দিবস। যে ব্যক্তির তরবারির আঘাতে তিনি শহীদ হয়েছিলেন তার নাম ছিল আবদুর রাহমান ইবনে মুলজেম। উনিশ রমজানে তাকে আঘাত করা হয়, আর একুশে রমজানে তিনি শাহাদাতবরণ করেন। হজরত আলীর পিতার নাম আবু তালিব ও মাতার নাম ফাতেমা বিনতে আসাদ (রা.)। তিনি মহানবী (সা.)-এর চাচাতো ভাই এবং সর্বকনিষ্ঠ কন্যা ফাতেমা জোহরার (রা.) স্বামী। যুবকদের মধ্যে তিনি প্রথম মুসলমান। ইসলামের পক্ষে অসি হাতে বীরত্বের জন্য মহানবী (সা.) তাকে ‘আসাদুল্লাহ’ (আল্লাহর সিংহ) উপাধি দেন। এছাড়া তাকে আমিরুল মুমেনিন নামেও ডাকা হতো।

তাঁর মধ্যে অসাধারণ কাব্যপ্রতিভাও ছিল। তাঁর রচনায় মূলত ইসলামের মহিমা ফুটে উঠেছে। ‘দিওয়ানে আলী’ শিরোনামে হজরত আলীর কবিতাসংগ্রহকে আরবি সাহিত্যের অমূল্য সম্পদ মনে করা হয়। একই সঙ্গে তিনি ছিলেন একজন সুবক্তা। ‘নাহজুল বালাগা’ নামে তাঁর বক্তৃতার একটি সংকলনও রয়েছে। হজরত আলীর মোট ১১ সন্তান ছিলেন। এর মধ্যে হজরত হাসান ও হুসাইন (রা.)-এর বংশধররা সৈয়দ নামে পরিচিত।

রমজানের বিগত দিনগুলো যাদের অবহেলায় কেটেছে, এখনো সময় আছে তাদের নিজেকে শুধরে নেওয়ার। প্রভুর দরবারে বিনীতভাবে নিজেকে সঁপে দেওয়ার। মুক্তির অবারিত সুযোগ পেয়েও যারা নিজেদের মুক্ত করে নিতে পারল না, তাদের চেয়ে হতভাগা আর কে?

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads