• সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এবার তথ্য কেলেঙ্কারিতে জড়ালো এআইকিউ

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ২৮ মার্চ ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফেইসবুক গ্রাহকদের তথ্য কাজে লাগানোর বিষয়টি নিয়ে হৈচৈ এখনো কমেনি। এরই মধ্যে কানাডিয়ান কোম্পানি অ্যাগ্রেগেটেল আইকিউয়ের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ এসেছে। ক্রিস্টোফার উইলি জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারে রিপাবলিকান ভোটারদের টার্গেট করতে এই কোম্পানি ওই পাঁচ কোটি ফেইসবুক গ্রাহকের তথ্যের ভিত্তিতে একটি প্রোগ্রাম তৈরি করেছিল।

ব্রিটিশ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানটির সাবেক কর্মী উইলি বলেন, ভোটারদের প্রোফাইল তৈরির জন্য ‘রিপন’ নামের একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছিল অ্যাগ্রেগেটেল আইকিউ (এআইকিউ)। ২০১৪ সালে একটি পারসোনালিটি কুইজের মাধ্যমে পাঁচ কোটি ফেইসবুক গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে ট্রাম্পের প্রচারণায় কাজে লাগায় কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা।

কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষকের তৈরি করা একটি অ্যাপের মাধ্যমে চালানো ওই কুইজে অংশ নিয়েছিলেন ২ লাখ ৭০ হাজার ফেইসবুক গ্রাহক। আর তাদের বন্ধুতালিকা থেকে পাঁচ কোটি ফেইসবুক অ্যাকাউন্টধারীর ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নেওয়া হয়েছিল ওই অ্যাপের মাধ্যমে। এই ফেইসবুক গ্রাহকদের অধিকাংশই ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা। উইলির দাবি, ওই সব তথ্য কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কাছে বিক্রি করা হয়। তারপর ফেইসবুক গ্রাহকদের মানসিকতার বিচারে তাদের শ্রেণিবিন্যাস করে ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার কৌশল নির্ধারণের রসদ যোগানো হয়।

এই বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে ফেইসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গকে তলব করেছিল ব্রিটিশ পার্লামেন্টের তদন্ত কমিটি। তবে জাকারবার্গ বলেছেন, তিনি নিজে আসছেন না। ইস্টার সানডের বিরতির পর পার্লামেন্ট অধিবেশন শুরু হলে প্রথম সপ্তাহেই তদন্ত কমিটির সামনে বক্তব্য নিয়ে হাজির হবেন ফেইসবুকের চিফ প্রোডাক্ট অফিসার ক্রিস কক্স।

জাকারবার্গের এই সিদ্ধান্তকে ‘বিস্ময়কর’ মন্তব্য করে তা পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাজ্য পার্লামেন্টের ডিপার্টমেন্ট ফর কালচার মিডিয়া অ্যান্ড স্পোর্ট সিলেক্ট কমিটির চেয়ারম্যান ডেমিয়েন কলিন্স। তবে জাকারবার্গ যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট সদস্যদের সামনে হাজির হতে চেয়েছেন বলে সিএনএন জানিয়েছে।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে হাজির হতে জাকারবার্গের অনীহার বার্তা আসার কয়েক মিনিট পর তদন্ত কমিটির কাছে অভিযোগের পক্ষে তথ্য-প্রমাণ তুলে ধরেছেন উইলি। তিনি বলেন, ‘পাবলিক ডোমেইনে এখনও স্পষ্ট প্রমাণ আছে যে, এআইকিউ প্রকৃতপক্ষে ‘রিপন’ তৈরি করেছিল, যে সফটওয়্যার ফেইসবুক ডেটা থেকে প্রণীত অ্যালগরিদম ব্যবহার করেছিল।’ যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন রাজ্যের শহর রিপন-এ ১৮৫৪ সালে রিপাবলিকান পার্টির প্রতিষ্ঠা হয়। জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে এই নামে তৈরি করা সফটওয়্যারটির মাধ্যমে ভোটার ডেটাবেইজ, নির্দিষ্ট ভোটারদের টানতে কর্মকৌশল, প্রচার কার্যক্রম, তহবিল সংগ্রহ এবং সমীক্ষা পরিচালনার কাজ করে ট্রাম্প শিবির।

কানাডিয়ান ফেডারেল এজেন্সি মঙ্গলবার বলেছে, এ বিষয়ে আলোচনার জন্য তারা ইতোমধ্যে ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। কোটি কোটি ফেইসবুক ব্যবহারকারীর তথ্যের অপব্যবহারের কথা উইলি প্রকাশ করার পর ব্যাপক চাপের মুখে পড়েছেন বিশ্বের বৃহত্তম এই সোশ্যাল মিডিয়ার কর্তাব্যক্তিরা।

ভুল স্বীকার করে গত সপ্তাহে ফেইসবুক পোস্টে ক্ষমা চেয়েছেন জাকারবার্গ। যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সাপ্তাহিক ছুটির দিন রোববার দুই দেশের বিভিন্ন সংবাদপত্রে পৃষ্ঠাজুড়ে বিজ্ঞাপন দিয়েও ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads