• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

বিটিআরসির প্রস্তাবিত নিজস্ব ভবন

সংগৃহীত

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

নিজস্ব ভবনের অনুমোদন পেল বিটিআরসি

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১১ এপ্রিল ২০১৮

প্রতিষ্ঠার প্রায় ১৬ বছর পর নিজস্ব ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। বুধবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী সভায় ভবন নির্মাণের বিষয়টি অনুমোদন পেয়েছে।

শিগগিরই এই ভবন নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হবে বলে জানিয়েছেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। বাংলাদেশের খবরকে তিনি বলেন, ‘২০০৯ সালে নিজস্ব ভবনের জন্য জায়গা কেনা হয়েছিল। এরই মধ্যে ভবন নির্মাণের বিষয়টি একনেকে অনুমোদন পেয়েছে। ভবনের নকশাও করা হয়েছে। শিগগিরই দরপত্র আহ্বান করা হবে এবং এরপর দুই থেকে তিন মাসের মধ্যেই ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে।’ ২০২০ সালের মধ্যে নিজস্ব ভবনের কার্যক্রম সম্পন্ন করা সম্ভব হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

বিটিআরসি সূত্রে জানা গেছে, ১৩ তলাবিশিষ্ট হবে এ ভবনটি। ভবন নির্মাণের জন্য ২০০৮ সালের জুলাই মাসে শেরেবাংলা নগরে এক একর জমি বরাদ্দ দেওয়া হয় বিটিআরসিকে। ভবনের জন্য নকশা তৈরিতে খরচ হয়েছে ২৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা। বিটিআরসির নিজস্ব তহবিল থেকে এই ব্যয় মেটানো হয়েছে।

বর্তমানে রাজধানীর রমনায় ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্সে দাফতরিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে বিটিআরসি। এই ভবনের পঞ্চম, ষষ্ঠ, সপ্তম এবং অষ্টম তলার একটি অংশ নিয়ে বিটিআরসির অফিস থাকলেও স্থান সংকুলান না হওয়ায় পরবর্তীতে ১৪ তলায় ১০ হাজার বর্গফুট ভাড়া নেওয়া হয়। প্রতিবছর অফিস ভাড়া বাবদ প্রায় ৯ কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয় করতে হয় সংস্থাটিকে।

নিজস্ব ভবন নির্মাণ করা হলে ৮টি ফ্লোর নিজস্ব কার্যক্রমের জন্য রেখে বাকি ফ্লোরগুলো ভাড়া দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বিটিআরসির। এর মাধ্যমে প্রতিবছর বাড়তি আয় হবে প্রায় ১০ কোটি টাকা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads