• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ভারতে যাচ্ছে দেশের ১২ গেমার

কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকারের সঙ্গে গেমাররা

সংগৃহীত ছবি

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ভারতে যাচ্ছে দেশের ১২ গেমার

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ভারতের গোয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ইন্ডিয়ান সাইবার গেমিং চ্যাম্পিয়নশিপ (আইসিজিসি) ২০১৮-তে গিগাবাইটের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশের ২টি দলের ১২ গেমার অংশগ্রহণ করছে বলে জানিয়েছেন গিগাবাইটের কান্ট্রি ম্যানেজার খাজা মো. আনাস খান। সোমবার রাতে ধানমন্ডিস্থ বিসিএস ইনোভেশন সেন্টারে আইসিজিসিতে অংশগ্রহণকারীদের জাতীয় পতাকা এবং জার্সি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

খাজা আনাস বলেন, দেশের ছেলেরা ভারতের গোয়ায় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে গেম খেলতে যাচ্ছে, এটি আমাদের জন্য গর্ব। বিজয়ের মুকুট তারা ছিনিয়ে আনবে বলেও আমি বিশ্বাস করি। কম্পিউটার গেমাররা এখন শুধু শখের গেমার নয়, কোটি ডলারের মার্কেট প্লেসের অংশও তারা। একটা সময় দেশে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্র হিসেবেও এই সেক্টর সমাদৃত হবে।

তিনি বলেন, এখন দেশে ১১ হাজারের বেশি নিবন্ধিত গেমার রয়েছে, যারা লেখাপড়ার পাশাপাশি এই গেম খেলছে এবং বিভিন্ন গেমে পারদর্শী হয়ে উঠেছে। আমরা চাই গিগাবাইটের মতো অন্যান্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানও গেমারদের স্পন্সর করুক এবং দেশের আরো সুনাম বয়ে আনুক। বিশ্বায়নের এই যুগে গেমিং হবে নিজের দেশকে প্রতিষ্ঠিত করার অন্যতম একটি খাত।

তিনি বলেন, গিগাবাইট সেই প্রথম থেকেই গেমারদের পরিপূর্ণ সহযোগিতা করার চেষ্টা করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় তাদের এই সাফল্যে আশা করছি তারা চ্যাম্পিয়ন হয়ে বীরের বেশে দেশে ফিরে আসবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার বলেন, ‘দেশের শিক্ষার্থীরা এখন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বড় বড় গেমিং ইভেন্টে অংশগ্রহণ করছে। তাদের সাফল্যও ঈর্ষণীয়। এদেশের ছেলেদের মেধা আছে। যেকোনো গেম জিতে আনার দক্ষতাও তারা সমানভাবে অর্জন করছে। তারা দেশের সুনাম বয়ে আনছে। এই গেমারদের আরো সহযোগিতা করা উচিত।’

শুধু গেম খেলাতেই নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখলে চলবে না জানিয়ে সভাপতি বলেন, ‘তোমাদের গেম তৈরির প্রচেষ্টা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। বিশ্বমানের গেম তৈরি করে বাংলাদেশের নাম সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার দায়িত্ব তোমাদের কাঁধে নিতে হবে।’

গেমে অংশগ্রহণ করা সিএসবিডি অ্যানোনিমস দলের দলনেতা সুদীপ্ত কুমার মণ্ডল বলেন, প্রায় পাঁচ মাস ধরে দুটি অনলাইন কোয়ালিফাই রাউন্ড খেলতে হয়েছে আমাদের। প্রতিটিতে যারা ফাইনাল খেলেছে ওই দুটো টিমই নির্বাচিত হয়েছে। এর মধ্যে গিগাবাইটের ব্যানারে খেলা একটি দল হলো সিএসবিডি অ্যানোনিমস এবং অন্যটি সিএসবিডি রিভেঞ্জ। দেশের অন্য আরেকটি দলও আছে। এখানে প্রায় ১০০টি দলকে হারিয়ে আমাদের বিজয়ী হতে হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads