• সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫
ads
বাংলাদেশের ৮ প্রকল্প নাসার জন্য মনোনীত

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

সংগৃহীত ছবি

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ইন্টারন্যাশনাল স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮

বাংলাদেশের ৮ প্রকল্প নাসার জন্য মনোনীত

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২২ অক্টোবর ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল অ্যারোনটিক অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (নাসা) আয়োজিত বিশ্বের সর্ববৃহৎ হ্যাকাথন প্রতিযোগিতা ‘ইন্টারন্যাশনাল স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮’ যাচ্ছে বাংলাদেশের ৮টি প্রকল্প। ৩৬ ঘণ্টা টানা হ্যাকাথন আয়োজনের পর গত শনিবার রাতে এই ৮টি প্রকল্পের নাম ঘোষণা এবং তাদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

আয়োজক পক্ষ থেকে জানা যায়, এবারের প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ২৫০টি শহরের মধ্যে বাংলাদেশের ৯টি শহরও (ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, রংপুর, ময়মনসিংহ এবং কুমিল্লা) এ আয়োজনে অংশগ্রহণ করেছে। দেশের ৯টি শহর থেকে দুই হাজারেরও বেশি প্রকল্প জমা পড়ে প্রতিযোগিতায়। সেখান থেকে শীর্ষ ৪০টি প্রকল্পকে নিয়ে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি মিলনায়তনে টানা ৩৬ ঘণ্টার  হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হয় এবং সেই ৪০ প্রকল্প থেকে এই সেরা ৮ প্রকল্পকে নির্বাচিত করা হয়।

দেশের ৫ বিভাগের বিজয়ী ৮টি দল হচ্ছে ঢাকা বিভাগের-চ্যাম্পিয়ন টিম গেম চেঞ্জার ও রানার্স-আপ প্ল্যানেট কিট, চট্টগ্রাম বিভাগের চ্যাম্পিয়ন টিম কিউ ও রানার্স-আপ টিম মাত্রা, কুমিল্লা বিভাগের চ্যাম্পিয়ন টিম ফোটন ও রানার্স-আপ : টিম মেটা কোডার্স, রংপুর বিভাগের চ্যাম্পিয়ন এইচএসটিইউ মেট্রোয়েড এবং সিলেট বিভাগের চ্যাম্পিয়ন টিম অলিক।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রদূত আজকের তরুণ সমাজ। তারাই আগামী দিনের ডিজিটাল বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে। বিশ্ব পরিমণ্ডলে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা এবং তরুণদের সক্ষমতা তুলে ধরতে বিশ্ব এ নিয়ে চারবার নাসার সঙ্গে যৌথ নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ -এর আয়োজন করল। গত বছর সেরা ১২০টি প্রকল্পের মধ্যে শীর্ষ দশে বাংলাদেশের দুটি প্রকল্প ছিল। এবার পরিধি আরো বেড়েছে। বাংলাদেশ আরো ভালো করবে এটাই আমার বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮-এর আহ্বায়ক দিদারুল আলম বলেন, এবার ২০০০ প্রকল্প থেকে বাছাই করে সেরা ৪০টি প্রকল্প আমরা নাসার জন্য মনোনীত করেছি। এবার সেরা ৮টি প্রকল্প আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। গত বছর বাংলাদেশ থেকে ২টি প্রকল্প Global People's Choice Finalists হিসেবে সম্মান অর্জন করে। এবার আরো ভালো কিছু করার আশা করছি আমরা।

নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জের যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল হাসান অপু বলেন, মহাকাশের বিভিন্ন সমস্যার বাইরে জলবায়ু, আগ্নেয়গিরি, মঙ্গল গ্রহসহ ৬টি ক্যাটাগরির অধীনে মোট ২০টি সাব ক্যাটাগরিতে এবার হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হবে। ক্যাটাগরিভিত্তিক এসব সমস্যা সমাধানে কাজ করবে আমাদের তরুণ বিজ্ঞানীরা। গত ৪ বছরের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন অনেক ভালো, আশা করছি ২০১৮-তে আমাদের অবস্থান আরো সুদৃঢ় হবে।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ফারহানা এ রহমান, সহসভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ, বেসিসের সহসভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান, পরিচালক তামজিদ সিদ্দিক স্পন্দন, নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮-এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক দিদারুল আলম এবং নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮-এর যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল হাসান অপু।

উল্লেখ্য, টানা চতুর্থবারের মতো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস-বেসিসের উদ্যোগে বেসিস স্টুডেন্টস ফোরামের সহযোগিতায় নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সফলভাবে শেষ হলো।

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads