• বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
সিনেমা হল বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার করছে হল মালিকরা

সংগৃহীত ছবি

শোবিজ

সিনেমা হল বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার করছে হল মালিকরা

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০২ এপ্রিল ২০১৯

আগামী ১২ এপ্রিল থেকে দেশের সিনেমা হলগুলো বন্ধের ঘোষণা প্রত্যাহার করেছে হল মালিকদের সংগঠন চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। মঙ্গলবার বিকেলে সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সাথে বৈঠকের পর চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ এবং প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের জানান, তথ্যমন্ত্রীর সাথে ফলপ্রসূ বৈঠক শেষে আমরা সিনেমা হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করেছি। চলচ্চিত্রকে শিল্প হিসেবে ঘোষণাটি কার্যকর করা এবং নির্দিষ্ট সংখ্যক হিন্দি সিনেমা আমদানির করলে মানুষ যেমন হলমুখী হবে, তেমনি দেশের চলচ্চিত্র শিল্পেরও দ্রুত বিকাশ ঘটবে। সরকার যুগোপযোগী সিদ্ধান্তের মাধ্যমে দেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে বাঁচাবে বলে আমরা আশা করি।

এর আগে বৈঠকের শুরুতে দেওয়া বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সিনেমা হলই যদি বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে সিনেমা দেখানো হবে কোথায়! সে কারণে দেশের চলচ্চিত্র বাঁচাতে হলে সিনেমা হল বাঁচাতে হবে। এক সময় সপ্তাহে দু’টোর বেশি সিনেমাও মুক্তি পেতো। এখন তা হয় না।’

হল মালিকদের দাবি প্রসঙ্গে হাছান মাহমুদ বলেন, হল মালিকেরা বিদ্যুৎ বিলের বাণিজ্যিক হার এবং ‘পিক আওয়ার’ হার রেয়াতের দাবি জানিয়েছেন। মন্ত্রণালয় থেকে পূর্বেই এ বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগে যোগাযোগ করা হয়েছে, নতুন করে আবারও বিষয়টি আলোচনা করা হবে। দেশি একটি ছবি রপ্তানির বিপরীতে ভারতীয় একটি সিনেমা আমদানির ছাড়পত্র পেতেও যে বিলম্ব হতো, তা দুর করা হবে।

নির্দিষ্ট সংখ্যক উপমহাদেশীয় ভিন্ন ভাষার অর্থাৎ মূলত: হিন্দি ছবি আমদানির যে দাবি তারা রেখেছেন, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, শিল্পী-কলাকুশলী সকলের সাথে আলোচনা করে যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, বলেন তথ্যমন্ত্রী।

এ সময় বিদেশি চ্যানেল সম্প্রচার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, সরকার কোনো বিদেশি চ্যানেল বন্ধ করেনি। দেশে ডাউনলিংক করে বিদেশি চ্যানেল প্রচারে প্রচলিত আইন প্রয়োগ করছে মাত্র।’

সভায় তথ্যসচিব আবদুল মালেক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ আজহারুল হক, যুগ্মসচিব মো. নজরুল ইসলাম, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নিজামুল কবীর, চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সহ-সভাপতি মো. আমির হামজা ও আর এম ইউনুছ রুবেল, যুগ্ম সম্পাদক শরফুদ্দিন স¤্রাট প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads