• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

শোবিজ

কানাডা মাতাচ্ছে মাইলস

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

১৯৮২ সালের কথা। চোখে-মুখে চাপা রোমাঞ্চ নিয়ে ঢাকার ফাস্টফুডের দোকানগুলোয় ঘুরঘুর করছিলেন একদল তরুণ। তাদের হাতে একটি নতুন ব্যান্ডের গানের অ্যালবাম। অ্যালবামের নাম মাইলস। ব্যান্ডের নামও একই। সেসময় তখনো দেশের অডিও শিল্পের বাজার সেরকমভাবে তৈরি হয়নি। বাধ্য হয়ে শ্রোতাদের হাতে গান পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন স্বয়ং ব্যান্ডের সদস্যরা। এরপর থেকে শ্রোতারাই হয়ে উঠেছেন মাইলসের গানের ফেরিওয়ালা। তারপর মাইলস পাড়ি দিয়েছে চার দশকের পথ। এ বছর ৪০ বছরে পা দিয়েছে মাইলস। এ উপলক্ষে দেশ-বিদেশে ছয় মাসব্যাপী কনসার্ট শুরু করছে দলটি।

৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন প্রদেশে সংগীত পরিবেশন করছে মাইলস। এরই অংশ হিসেবে কানাডার ক্যালগেরির জেনেসিস সেন্টারে এক মনোজ্ঞ কনসার্টের আয়োজন করা হয়। কনসার্টের শুরুতেই মাইলস তাদের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সবাইকে শুভেচ্ছা জানান। এরপর মঞ্চে উঠে একে একে গাইতে থাকেন তাদের জনপ্রিয় গান- নিলা তুমি কি জানো না, শেষ বিকেলের আলোতে, চাঁদ তারা সূর্য নও তুমি, কী জাদু, আর কতকাল খুঁজব তোমায়, ধিকি ধিকি আগুন জ্বলে, ফিরিয়ে দাও আমার এ প্রেম তুমি। মাইলসের বহুল জনপ্রিয় এ গানে কিছুটা সময়ের জন্য হলেও উপস্থিত শ্রোতারা হারিয়ে যান সুরের অনাবিল আনন্দে। মাইলস ইন ক্যালগেরি টিম নামে একটি সংগঠনের আমন্ত্রণে তারা এখানে সংগীত পরিবেশন করেন। এ কনসার্ট থেকে প্রাপ্ত অর্থ আলবাট্রা ক্যানসার ফাউন্ডেশনকে দেয়ওা হবে বলে জানায় আয়োজক টিম।

১৯৮২ সালে প্রথম অ্যালবাম বেরোলেও মাইলস যাত্রা শুরু করেছিল ১৯৭৯ সালে। ১৯৮০ বা ১৯৯০-এর দশকে এ দেশে যারা ব্যান্ড সংগীতের ভক্ত হয়েছেন, তাদের অনেকের কাছেই মাইলস ‘প্রথম প্রেমের মতো’। প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা কেউই এখন আর দলে নেই। তবু দেখতে দেখতে মাইলসের ৪০ বছর হলো। ফেলে আসা দিনগুলোর দিকে তাকিয়ে মাইলস কিন্তু ‘ফিরিয়ে দাও, হারানো দিনগুলো এভাবে চলে যেয়ো না’ গেয়ে থমকে যাচ্ছে না। বরং তাকাচ্ছে সামনের দিকে। এখন মাইলসের সদস্য সংখ্যা ৫। আছেন শাফিন আহমেদ, হামিন আহমেদ, মানাম আহমেদ, সৈয়দ জিয়াউর রহমান তূর্য ও ইকবাল আসিফ জুয়েল। শাফিন, হামিন, মানাম প্রায় শুরু থেকেই আছেন। যত সময় গেছে, মাইলস পরিণত হয়েছে আরো। বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের শব্দায়োজন, শব্দ প্রকৌশলে তাদের অবদানের কথা গানের জগতের মানুষ তো বটেই, শ্রোতারাও জানেন।

মাইলসের প্রথম বাংলা গানের অ্যালবাম ‘প্রতিশ্রুতি’ বেরিয়েছিল ১৯৯১ সালে। দ্বিতীয় অ্যালবাম প্রত্যাশা। প্রথম দুটি অ্যালবামের নামের শুরুতে ‘প্র’ ছিল বলেই মাইলসের অ্যালবামের নামে ‘প্র’ থাকা একসময় অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়াল। প্রত্যয়, প্রয়াস, প্রবাহ, প্রতিধ্বনি, প্রতিচ্ছবি, প্রবর্তন অ্যালবামের গানগুলো জনপ্রিয়তা পেয়েছে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে। ‘চাঁদ তারা সূর্য’, ‘প্রথম প্রেমের মতো’, ‘ফিরিয়ে দাও’, ‘ধিকি ধিকি’, ‘পাহাড়ি মেয়ে’, ‘নীলা’, ‘কী জাদু’, ‘হূদয়হীনা’, ‘জ্বালা জ্বালা’, ‘পিয়াসী মন’, ‘বলব না তোমাকে’, ‘প্রিয়তমা মেঘ’... মাইলস মঞ্চে উঠলে গানগুলো গাওয়ার দায়িত্ব নিয়ে নেন শ্রোতারা। তাই ৪০ বছর পেরিয়ে আরো দূর যেতে চায় দেশে-বিদেশে জনপ্রিয়তা পাওয়া ব্যান্ডটি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads