• রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads

শোবিজ

‘সাইটসেভারস’-এর অতিথি অধরা

  • অভি মঈনুদ্দীন
  • প্রকাশিত ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

‘সাইটসেভারস’ ১৯৫০ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি বেসরকারি সংস্থা। যার প্রতিষ্ঠাতা হলেন স্যার জন উইলসন, যিনি নিজেই অন্ধ ছিলেন। বিগত প্রায় সত্তর বছর যাবৎ বিশ্বের ত্রিশটি দেশ মূলত যেখানে গরিব লোকদের বসবাস তাদের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করছে এ সংস্থাটি। সেখানকার অন্ধ এবং প্রতিবন্ধী মানুষদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে পাশে থাকছে। বাংলাদেশে ‘সাইটসেভারস’ কাজ করছে ১৯৭৩ সাল থেকে, সেটা জানালেন এই আন্তর্জাতিক সংস্থাটির মনিটরিং কো-অর্ডিনেটর কণিকা দে। বিশ্বকে অন্ধমুক্ত এবং প্রতিবন্ধীদের সমাজে সমানাবস্থান গড়ে তোলার লক্ষ্যেই এ সংস্থাটি কাজ করে। সংস্থাটির কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল দশটায় রাজধানীর প্রেস ক্লাবে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে, যেখানে ‘প্রতিবন্ধী সুরক্ষা আইন ২০১৩’র কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আলোচনা করা হবে। ‘সাইটসেভারস’র মতো আন্তর্জাতিক একটি সংস্থার এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রিত হয়েছেন চিত্রনায়িকা অধরা খান।

গেল ৩ সেপ্টেম্বর ‘সাইটসেভারস’র একটি চিঠি মারফত তিনি এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত হন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য প্রদান করবেন তিনি।

এমন একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার বিশেষ অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত হয়ে উপস্থিত থাকা প্রসঙ্গে অধরা খান বলেন, ‘চলচ্চিত্রে আমার পথচলা মাত্র কিছুদিনের। কিন্তু এই কিছুদিনেই আমি এদেশের সিনেমাপ্রেমী মানুষের যে ভালোবাসা পেয়েছি তাতে মুগ্ধ আমি। দর্শকের ভালোবাসার কাছে ঋণী আমি। আমি অতি সাধারণ একজন মানুষ। কিন্তু তারপরও সাইটসেভারস’র মতো একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার একটি অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে পারাটা আমার জন্য অনেক সম্মানের, অবশ্যই শিল্পী হিসেবে অনেক বড় অর্জনেরও বটে। সাইটসেভারস বিগত প্রায় সত্তর বছর ধরে যেভাবে কাজ করে আসছে তা সত্যিই অনেক প্রশংসার দাবি রাখে। আমি এই সংস্থাটির হয়ে সবসময়ই পাশে আছি, থাকব।’

অধরা খান জানান, আগামী ২ অক্টোবর থেকে তিনি তার নতুন সিনেমার কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন। তবে আপাতত সিনেমার নাম, পরিচালকের নাম এবং তার বিপরীতে কে অভিনয় করছেন সে ব্যাপারে কিছুই জানাতে চাচ্ছেন না। সময়টা আরেকটু কাছে এলেই সবকিছু চূড়ান্তভাবে জানাবেন তিনি। গেল বছরের শেষপ্রান্তে অধরা অভিনীত দুটি সিনেমা মুক্তি পায়। একটি শাহীন সুমনের ‘মাতাল’ ও অন্যটি ইস্পাহানী আরিফ জাহানের ‘নায়ক’। পরিচালক শাহীন সুমনের ‘বখাটে’ ও ইস্পাহানী আরিফ জাহানের ‘সুন্দরীতমা’ সিনেমাতেও তার কাজ করার কথা রয়েছে। শরীয়তপুরের সখীপুরের মেয়ে অধরা খানের অভিনয়ে সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা তার মা।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads