• বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
ads

শোবিজ

‘আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ অভিনয় করা’

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তানজিন তিশা। এ সময়ের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেত্রী। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে থাকলেও বিগত কয়েক বছরে প্রশংসাই কুড়িয়েছেন এ অভিনেত্রী। দুই ঈদের নাটকেও দর্শকদের মনোযোগ কেড়েছেন তিশা। তার অভিনীত বেশিরভাগ নাটকই ছিল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে।

নাট্যাঙ্গনে তানজিন তিশা ‘এক্স বয়ফ্রেন্ড’ নাটকের মধ্য দিয়ে আলোচনায় উঠে আসেন। হয়ে উঠেন নির্মাতাদের আস্থাভাজন অভিনেত্রীদের একজন। তবে নাটকে তার প্রথম সাফল্য রেদোয়ান রনির ‘ইউটার্ন’ নাটকটি। এর মধ্য দিয়ে তিশা সেরা অভিনেত্রী হিসেবে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার পান।

অভিনয়ে আলোচিত হলেও ব্যক্তিগত জীবন, প্রেম-ভালোবাসা ও বিচ্ছেদের মতো ঘটনা নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি তিশার। সর্বশেষ ঈদের পর ছুটি কাটাতে অস্ট্রেলিয়া গিয়েছিলেন নিজের বন্ধুকে নিয়ে। বন্ধুর সঙ্গে একান্তে সময় কাটানো কিছু ছবি পোস্ট করেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এটি দেখার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন তিশা।

যদিও এসব বিতর্ক, সমালোচনা কখনোই গায়ে মাখেননি তিশা। নিজের মতো অভিনয় করে গেছেন। এবারো এর ব্যতিক্রম হয়নি। অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফিরেই শুরু করেছেন নাটকের কাজ। তিশা বলেন, ‘ঈদের পর লম্বা ছুটি কাটিয়ে ফটোশুটের মধ্য দিয়ে কাজ শুরু করেছি। এ মাসে হাতে অনেক কাজ রয়েছে। এর মধ্যেই কিছু কাজের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। কাজগুলো খুব শিগগির শুরু করব। চেষ্টা করছি দর্শকের চাহিদামতো মানসম্মত কাজ করতে। আমার প্রতি দর্শকের আলাদা প্রত্যাশা তৈরি হয়েছে। সেই প্রত্যাশা পূরণের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করেছি।’

এদিকে গত ঈদেও এ অভিনেত্রীকে দুই ডজনের মতো নাটকে দেখা গেছে। তার মধ্যে তাহসানের বিপরীতে ‘শেষ বিকেল’, ইরফান সাজ্জাদের সঙ্গে ‘ডুডল অব লাভ’ ও অপূর্বের সঙ্গে ‘শিশির বিন্দু টু’ এবং ‘কুহক’-সহ ঈদের নাটকগুলোতে দর্শক ভিন্নরূপে দেখতে পেয়েছেন এ অভিনেত্রীকে।

তিশা বলেন, ‘ঈদ মৌসুমে প্রত্যেক শিল্পীর মধ্যেই ভালো কাজ করার প্রতিযোগিতা থাকে। এই সময়ে দর্শকও ঈদের নাটক বেশি দেখে। আর রোজার ঈদে আমার কাজগুলো ভালো সাড়া পাওয়ায় কোরবানির ঈদে আমার ওপর বেশ চাপ ছিল। এই চাপের মধ্যেই চেষ্টা করেছি ভালো মানের কিছু কাজ উপহার দিতে।’

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় ছুটিতে থাকার সময় জাহিন খান নামে একজন ফ্যাশন ডিজাইনারের সঙ্গে প্রেম করছেন বলে কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। এ বিষয়েও কথা বলেন, তানজিন তিশা। তিনি বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমি বেশ বিরক্ত। জাহিন আমার কাছের একজন বন্ধু। জাহিন ও আমাকে নিয়ে যেসব মুখরোচক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তা আমার সঙ্গে কথা না বলেই হয়েছে। ইদানীং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কোনো ছবি পোস্ট করতেও আমার ভয় হয়। কারো সঙ্গে ছবি দেখলেই তার সঙ্গে প্রেম হচ্ছে বলে ভেবে নেন সবাই। আমাদের চিন্তাভাবনার পরিবর্তন আনা প্রয়োজন।’

তিশা আরো বলেন, ‘আমি তথাকথিত প্রেম ভালোবাসার মধ্যে নেই। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ অভিনয় করা। সামনের দিনগুলোতে দর্শককে আরো ভালো মানের কাজ উপহার দিতে চাই। গতানুগতিক আবহাওয়া থেকে বের হয়ে নতুন উদ্যমে পর্দায় হাজির হব। এটাই আমার একমাত্র লক্ষ্য।’    

মডেলিং দিয়ে শুরু তানজিন তিশার মিডিয়া ক্যারিয়ার। প্রথমেই অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় ‘রবি’র বিজ্ঞাপনে কাজ করে বাজিমাত করেন তিনি। এটিই ছিল তার টার্নিং পয়েন্ট। এরপর তাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। নামিদামি পণ্যের মডেল হয়ে নিজেকে একটা পোক্ত অবস্থানে দাঁড় করিয়ে শুরু করেন নাটক ও টেলিছবির কাজ। ইউটার্ন, আপন কথা, ময়না টিয়া, সোনালি রোদ্দুর, এই শহরে মেয়েরা একা, অচেনা বন্ধু নাটকে অভিনয় করে নিজের জাত চিনিয়েছেন তানজিন তিশা।

সারা বছর তিশাকে একক নাটকেই বেশি দেখা যায়। ভালো গল্প ও নির্মাতা পেলে মাঝেমধ্যে ধারাবাহিকেও অভিনয় করেন তিনি। নাটকের পাশাপাশি মিউজিক ভিডিওর কল্যাণে আরো লাইমলাইটে আসেন তিনি। জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ইমরানের ‘বলতে বলতে চলতে চলতে’ গানের মডেল হয়ে হইচই ফেলে দেন। এরই ধারাবাহিকতায় বেশ কয়েকটি গানের মডেল হিসেবে তাকে দেখা যায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads