• শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শোবিজ

দিঠির একক সন্ধ্যায় মুগ্ধ শ্রোতা দর্শক

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০২ ডিসেম্বর ২০১৯

প্রতিষ্ঠার ৪৪ বছর উপলক্ষে ‘আমরা সূর্যমুখী’ উপমহাদেশের প্রখ্যাত গীতিকবি গাজী মাজহারুল আনোয়ারের কন্যা দিঠি আনোয়ারের একক সংগীত সন্ধ্যার আয়োজন করে গেল শনিবার বিকেলে। রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তেন এই সংগীত সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গীতিকবি, প্রযোজক, পরিচালক গাজী মাজহারুল আনোয়ার, বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী, অভিনেত্রী লায়লা হাসান, মুক্তিযোদ্ধা সংগীতশিল্পী শাহীন সামাদ ও গীতিকবি শহীদুল্লাহ ফরায়েজী।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক সমন্বয় করেন আমরা সূর্যমুখীর নির্বাহী পরিচালক সেলিম। উপস্থাপন করেন রূপশ্রী চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানের শুরু হয় প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদের বৃক্ততার মধ্য দিয়ে। সবাই দিঠির সংগীত সাধনা এবং তার গায়কির প্রশংসা করেন।

আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘গান সাধনার বিষয়। সাধনা ছাড়া গানে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা সম্ভব নয়। দিঠি আমাদের সবার শ্রদ্ধেয় গাজী মাজহারুল আনোয়ারের মেয়ে। বাবার সুযোগ্য উত্তরসূরি হয়েই নিজেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করছে। এটা প্রশংসনীয় বিষয় নিঃসন্দেহে।’

লায়লা হাসান বলেন, ‘দিঠির ছোট্টবেলা থেকেই তাকে দেখে আসছি। গানের প্রতি তার এক অন্যরকম টান ছিল বলে একজন সংগীতশিল্পী হিসেবেই প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। আমার আশীর্বাদ রইল আগামীদিনেও যেন দিঠি গানে গানে সবার মন ভরিয়ে দিতে পারে।’

অতিথিদের বক্তৃতা শেষে সংগীত পরিবেশন করার জন্য মঞ্চে ওঠেন দিঠি আনোয়ার। মঞ্চে উঠে শুরুতেই দিঠি পরিবেশন করেন ‘মাগো আজ তোমাকে ঘুম পাড়ানির মাসি হতে দেবো না’। প্রথম গান দিয়েই হলভর্তি শ্রোতা দর্শকের মন ভরিয়ে দেন দিঠি আনোয়ার। এরপর একে একে তিনি ‘গীতিময় সেই দিন’, ‘চিঠি দিও প্রতিদিন’, ‘সে যে কেনো এলো না’, ‘ও আমার রসিয়া বন্ধুরে’, ‘পান খাইয়া ঠোঁট লাল করিলাম’, ‘পাখি খাঁচা ভেঙে উড়ে গেলে’, ‘বন্ধু তিনদিন তোর বাড়িত গেলাম’, ‘এক নজর না দেখলে বন্ধু’, চুপি চুচি বলো কেউ জেনে যাবে’, ‘তোমাকে চাই আমি আরো কাছে’। প্রতিটি গানে দিঠি তার অসাধারণ গায়কি দিয়ে শ্রোতা দর্শককে মুগ্ধ করেন। শেষ গান পর্যন্ত হলভর্তি দর্শক তার গান মুগ্ধ হয়ে উপভোগ করেন। অবশ্য আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে সংগীতশিল্পী ইউসুফ ও অপু আমানকে মঞ্চে ডেকে নিয়ে যান দিঠি। তারা দুজনও দুটি একক এবং দিঠির সঙ্গে দ্বৈত গান পরিবেশন করেন।

এমন একটি সংগীত সন্ধ্যা আয়োজনের জন্য দিঠি আনোয়ার বলেন, ‘আমরা সূর্যমুখী’র এই আন্তরিক উদ্যোগের প্রতি আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। শুধু আমি নই, আমার পরিবারের সবাই কৃতজ্ঞ। এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে আমাকে যে সম্মান দেওয়া হলো, তাতে ভীষণ গর্বিত আমি। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন সুস্থ থাকি ভালো থাকি, শুধু সুরের গান গেয়ে যেতে পারি আজীবন।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads