• বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ৯ মাঘ ১৪২৬

শোবিজ

বিরতির পর অভিনয়ে ফিরলেন ঈশানা

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

মৌনতা খান ঈশানা। চলমান সময়ের টিভি নাটকের ব্যস্ত ও আলোচিত মুখ। পাঁচ মাস আগে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এ তারকা। ব্যক্তিগত জীবনের কারণে অভিনয় থেকে ছোট্ট একটা বিরতি নেন। অবশেষে সেই বিরতি ভেঙে আবার অভিনয়ে ফিরছেন সুহাসিনী ঈশানা। অস্ট্রেলিয়াতে ‘মন দরজা’ নামে একটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করছেন তিনি।

নাটকটিতে আরো অভিনয় করছেন নিলয় ও নাদিয়া আহমেদ। এ বছরের শুরুর দিকে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ঈশানা। পাত্র সারিফ চৌধুরী। থাকেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। পেশায় নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার। সারিফ চৌধুরী ছুটিতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন। তার কিছুদিন পরেই ঈশানাকে নিয়ে পাড়ি জমান অস্ট্রেলিয়াতে। এখন স্বামীর সঙ্গে এ অভিনেত্রী সেখানেই বসবাস করছেন। ‘মন দরজা’ নাটকটি আকিদুল ইসলামের রচনায় পরিচালনা করছেন লিটু করিম।

এ ব্যাপারে ঈশানা বলেন, ‘আমার স্বামীর উৎসাহে এ নাটকে অভিনয় করছি। বিয়ের পর এটাই আমার প্রথম নাটক। নতুন পরিবারে এসেও সবার কাছ থেকে প্রশংসা পাচ্ছি, সাপোর্ট পাচ্ছি। সবাই খুব আন্তরিকভাবে আমার কাজকে উৎসাহ দিচ্ছেন। এছাড়া অনেক দিন পর সহকর্মীদের পেয়ে ভীষণ ভালো লাগছে।

লাক্স তারকা হয়ে মিডিয়ায় আগমন ঈশানার। নাটক ছাড়াও মডেলিং ও বিজ্ঞাপনে কাজ করেন তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি নাচও করেন তিনি। সুন্দর ও সাবলীল অভিনয় আর কথা বলার নিজস্ব ভঙ্গিমা দিয়ে ক্রমেই যেন দর্শকের মনে শক্ত একটা অবস্থান তৈরি করে নিচ্ছেন ঈশানা।

গত বছর মীর সাব্বিরের পরিচালনায় ‘নোয়াশাল’, সৈয়দ শাকিলের ‘উল্টো স্রোত’, দেওয়ান নাজমুলের ‘সুয়োরানী দুয়োরানী’, এফ জামান তাপসের ‘নিউটনের তৃতীয় সূত্র’ ধারাবাহিক নাটকগুলো দিয়ে তিনি গত বছর বেশ আলোচনায় ছিলেন। প্রতিটি নাটকে নিজেকে আবিষ্কার করেন ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে। চলতি বছরেও কাজ করছেন কয়েকটি ধারাবাহিকে, খণ্ড নাটক ও ওয়েব সিরিজে। এর মধ্যে ফেরদৌস হাসানের পরিচালনায় অভিনয় করছেন ‘এক পা দুই পা’ ও মেগা সিরিয়াল ‘খল নায়কে’। জুনায়েদ হোসেন ও ওয়াহিদুজ্জামান সবুজের রচনায় এবং ফিরোজ কবীর ডলারের পরিচালনায় ‘খল নায়ক’ নাটকে তিনি অভিনয় করেছেন মেঘ চরিত্রে। যে চরিত্রটি দর্শক মহলে বেশ সাড়া ফেলেছে।

 

ধারাবাহিক ও খণ্ড নাটক-দুটোতেই কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করলেও ঈশানা বছরের বেশির ভাগ সময় ব্যস্ত ছিলেন ধারাবাহিক নাটকেই। অভিনয়ের ক্ষেত্রে গল্প ও চরিত্র পছন্দসই না হলে কাজ করেন না এ অভিনেত্রী। সব সময় একই ধরনের চরিত্রে অভিনয় না করে বৈচিত্র্যময় চরিত্রে অভিনয়কেই প্রাধান্য দেন তিনি।

ঈশানা বলেন, ‘অভিনয়ের জন্য সবার আগে চাই ভালো গল্প। অবশ্যই তা মৌলিক গল্প হতে হবে। অভিনয়ে নিজেকে ভাঙা যাবে, এমনই চরিত্র গুরুত্ব দিয়ে দেখি। সত্যি বলতে, আমি চ্যালেঞ্জিং চরিত্র খুঁজি। যে কাজটি দেখে দর্শক আমাকে নতুনভাবে আবিষ্কার করবে।’

বতর্মানে নাটকে শুটিংয়ের ক্ষেত্রে কম সময়ে বেশি কাজের প্রবণতা শুরু হয়েছে। কম সময়ে বেশি কাজ নিয়ে ঈশানা বলেন, ‘কম সময়ে বেশি কাজ হলে সেটা ভালো হয় না। ছয় দিনে পাঁচটি নাটকে শুটিং করেছি। প্রত্যেকটি নাটকেরই গল্প সুন্দর। তবে যেহেতু সময় কম ছিল তাই আমাকে অনেক চাপের মধ্য দিয়ে কাজ করতে হয়েছে। যে কারণে অভিনয়ে পূর্ণ মনোযোগ দেওয়া কঠিন ছিল। কিন্তু তারপরও আমি চেষ্টা করেছি, প্রত্যেকটি চরিত্র যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে। নির্মাতারাও আমাকে সহযোগিতা করেছেন যার যার অবস্থান থেকে।’

নতুন বছরে এখনো বিজ্ঞাপনে কাজ না করলেও গত বছর কোহিনূর কেমিক্যাল লিমিটেডের (তিব্বত) এ বিজ্ঞাপনে দেখা গেছে ঈশানাকে। এতে তার সঙ্গে ছিলেন টিভি নাটকের গুণী অভিনেত্রী সাবেরি আলম। গত বছর ওয়েব সিনেমা ‘জনি পিটারে’ অভিনয় করে প্রশংসা পায় ঈশানার অভিনয়। এরপর ‘মিড নাইট ক্লাব’, ‘সিরিয়াল কিলারে’ কাজ করেছেন। বতর্মান সময়ের ওয়েব সিরিজের জোয়ার নিয়ে তিনি বলেন, ‘এই মাধ্যমের এখন চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। এটাকে আমি ইতিবাচক হিসেবেই দেখছি। এতে কাজের অনেক সুবিধা আছে। নির্মাতারা নিজেদের মতো করে কাজ করতে পারেন। অনেক বড় বড় অভিনয়শিল্পীরাও এতে কাজ করছেন।’

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads