• শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬
ads

শোবিজ

ওপার বাংলাতেই স্বস্তি জয়ার

  • সালেহীন বাবু
  • প্রকাশিত ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

গ্ল্যামার আর অভিনয়গুণে অনেক আগেই দর্শক-সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন জয়া আহসান। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে সেরা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ক্যাটাগরিতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনবার। সীমানা পেরিয়ে ওপার বাংলাতেও নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করেছেন জয়া আহসান।

তবে গত দুই-তিন বছর কলকাতার ছবিতেই বেশি দেখা মিলছে তার। এমনকি সেখানে তার যে ছবিই মুক্তি পায়, সেই ছবিটিই ভালো ব্যবসা করে। শুধু তা-ই নয়, সাবলীল অভিনয়ের দরুন প্রশংসার পাশাপাশি পুরস্কারও অর্জন করে তার বেশির ভাগ ছবি। কিন্তু ঠিক যেন তার উল্টা চিত্র এপার বাংলায়। কলকাতায় সাড়া পেলেও এপারে সাড়া মিলছে না জয়ার কোনো ছবি। একমাত্র নিজের প্রযোজনার ‘দেবী’ ছবিটি ছাড়া কোনো ছবিই সাফল্যের মুখ দেখেনি। অন্যদিকে জয়া আহসান অভিনীত ওপার বাংলার সুপারহিট ছবিও ধরাশায়ী হয়ে পড়ছে বাংলাদেশে এসে। এমনকি মুক্তির শুরুতেই মুখ থুবড়ে পড়েছে কয়েকটি ছবি।

গত বছরের শুরুটা হয়েছিল জয়াকে দিয়েই। দুই বাংলায় মুক্তি পেয়েছিল তার ছবি। ২০১৯ সালের ৪ জানুয়ারি বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছিল ‘বিসর্জন’ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ‘বিজয়া’। দুটি ছবিতেই কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ছবি দুটি মুক্তির পর দেখা যায়, পশ্চিমবঙ্গে ‘বিজয়া’ মোটামুটি ভালো চললেও বাংলাদেশে সুবিধা করতে পারেনি ‘বিসর্জন’। ইন উইন এন্টারপ্রাইজের আমদানি করা এই ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল মাত্র কয়েকটি হলে। গত বছরের নভেম্বরে বাংলাদেশে মুক্তি পায় বহুল আলোচিত ছবি ‘কণ্ঠ’। কলকাতার এই ছবিটি পরিচালনা করেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়। যেখানে শিবপ্রসাদ ও পাওলি দামের সঙ্গে ছবির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের অভিনেত্রী জয়া আহসান। একই বছরের মে মাসে কলকাতায় ‘কণ্ঠ’ মুক্তির পর ভালোই ব্যবসা করে। আমেরিকার কয়েকটি রাজ্যে ভালো সাড়া ফেললেও ফ্লপের খাতায় পড়ে ছবিটি। সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে ছবিটি আনে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম। দেশের ২২ প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি পেলেও ফ্লপ হয় জয়ার ‘কণ্ঠ’।

এই বছরে নতুন আশায় বুক বাঁধেন জয়া ও তার ভক্তরা। শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দেশের প্রেক্ষাগৃহে নীরবেই মুক্তি পেয়েছে জয়ার নতুন ছবি ‘রবিবার’। ওপার বাংলার প্রযোজনায় এ ছবিতে জয়ার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন কলকাতার জয়া-প্রসেনজিৎ জুটির প্রথম কাজ এটি। অতনু ঘোষ পরিচালিত সিনেমাটি কলকাতার সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছিল গত ২৭ ডিসেম্বর। সাফটা চুক্তির মাধ্যমে এটি বাংলাদেশে আমদানি করেছে অ্যাকশন কাট এন্টারটেইনমেন্ট। সিনেমাটি দেশের মাত্র দুটি হলো শেরপুর ও কক্সবাজারে মুক্তি পেয়েছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, হল দুটিতে প্রথম দিনের শোগুলোতে প্রায় দর্শকশূন্য ছিল।

সম্পর্কের গল্প নিয়ে আবেগ ও থ্রিলার মিলিয়ে তৈরি হয়েছে ‘রবিবার’। যেখানে দেখা যাবে জয়া-প্রসেনজিতের একটা সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সেটা ভেঙে যায়। একত্র হন না তারা। হঠাৎ একদিন রবিবারে তাদের দেখা হয়। ঘটতে থাকে অনুভূতির নানা ঘটনা। সিনেমাটিতে প্রসেনজিৎ অভিনয় করেছেন অসীমাভর চরিত্রে আর জয়ার চরিত্রের নাম সায়নী। এটি প্রযোজনা করেছে ইকো এন্টারটেইনমেন্ট।

 জয়া আহসান দুই বাংলার একাধিক ছবি নিয়ে বর্তমানে ব্যস্ত রয়েছেন। হাবিবুর রহমান হাবিবের পরিচালনায় বাংলাদেশের সরকারি অনুদানের ‘অলাতচক্র’, ‘বিউটি সার্কাস’, কলকাতার অতনু ঘোষের ‘বিনি সুতোয়’ ছবি দুটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এদিকে জয়া নিজের প্রযোজনায় ‘ফুড়ুৎ’ ছবির শুটিং এখনো শুরু করতে পারেননি।

 তবে এপার বাংলা থেকে ওপার বাংলাতেই সফল হচ্ছেন জয়া। বাড়ছে গ্রহণযোগ্যতা। তবে এই বাংলায় জয়ার জনপ্রিয়তার কিঞ্চিত ভাটা পড়েছে বৈকি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads