• সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

শোবিজ

সাংবাদিক ফেরদৌস

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২২ অক্টোবর ২০২০

করোনার প্রাথমিক বিরতি শেষে একে একে কাজ শুরু করে দিয়েছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের অভিনয়শিল্পীরা। ‘গাঙচিল’ ছবির মধ্য দিয়ে দীর্ঘদিন পর শুটিংয়ে ফেরেন দর্শকপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রী ফেরদৌস ও পূর্ণিমা। গত ১৯ অক্টোবর পুনরায় শুরু হয় ‘গাঙচিল’-এর কাজ। এরপর রাজধানীর বিএফডিসির ৯ নম্বর ফ্লোরে সেট তৈরি করে শুটিং শুরু হয়।  মঙ্গলবার এফডিসিতেই টানা ছয় ঘণ্টা বৃষ্টিতে ভিজে মারামারির একটি দৃশ্যের শুটিং করেন ফেরদৌস। তিনি জানান, এফডিসিতে ফাইট ডিরেক্টর আরমানের নির্দেশনায় টানা ছয় ঘণ্টা বৃষ্টিতে ভিজে শুটিং করেছি। অবশেষে দারুণ একটি ফাইট দৃশ্য ধারণ হয়েছে। এদিকে টানা ছয় ঘণ্টা বৃষ্টিতে ভিজে শুটিং করায় কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ফেরদৌস। ফলে এক দিন বিশ্রামে থাকবেন বলে জানান এ তারকা।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের লেখা ‘গাঙচিল’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে গাঙচিল চলচ্চিত্র। এটি পরিচালনা করছেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। ছবিটির প্রায় ৮০ ভাগ শুটিং শেষ হলেও করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ ছিল শুটিং। অবশেষে করোনার এই পরিস্থিতিতেই ক্যামেরা ওপেন হয়।

এতে ফেরদৌস রয়েছেন সাংবাদিক চরিত্রে আর পূর্ণিমাকে একজন এনজিওকর্মীর ভূমিকায় দেখা যাবে। বিশেষ একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন কলকাতার ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। আরো আছেন আফজাল হোসেন, তারিক আনাম খান, আনিসুর রহমান মিলন, আহসানুল হক মিনু প্রমুখ।

অভিনয় ক্যারিয়ার নিয়ে নিজের ভাবনা নিয়ে ফেরদৌস বলেন, ‘আমার ক্যারিয়ারটাকে নিজের মতো করেই এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। এরপর একটা সময় একই ধরনের কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে গিয়েছিলাম। একই ধরনের নাচ, গান আর মারামারি। মনে হয়েছিল এর বাইরে গিয়ে আমার একটু কাজ করা উচিত। এখন ভিন্ন ধরনের ছবিতে কাজ করছি। এগুলো মুক্তি পেলে দর্শকরা নতুন এক ফেরদৌসকে দেখতে পাবেন।’

বয়স বাড়ছে এটা কখনো মনে হয়, এমন প্রশ্নের জবাবে ফেরদৌস বলেন, ‘এটা মনের বিষয়। এভাবেই মেনে নিয়েছি। তাই বয়স বাড়ার কারণে কিছু মনে হয় না। তবে মাঝেমধ্যে মনে হয়, সময় যেভাবে দৌড়ে যাচ্ছে, আমি কি সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কাজগুলো ঠিকঠাকভাবে করতে পারছি? এ ছাড়া বাকি সব ঠিক আছে।’

হঠাৎ বৃষ্টি সিনেমায় অনবদ্য অভিনয় করে আজ থেকে দুই দশক আগে প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস। পরে আরো তিনটি সিনেমায় অনবদ্য অভিনয়ের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন তিনি। ২০১৮ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার আবারো পান ফেরদৌস আহমেদ। তার সমসাময়িক কোনো নায়কই পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাননি। সাইফুল ইসলাম মান্নু পরিচালিত অটিজমের ওপর নির্মিত ছবিতে অভিনয়ের জন্য ফেরদৌস পঞ্চমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।

দেশে সিনেমা হল কমে যাওয়ার কারণে সিনেমা নির্মাণও এখন অনেক কমে গেছে। সংখ্যাগত দিক দিয়ে হিসাব করলে ফেরদৌসের হাতে সিনেমা কম। কিন্তু মানসম্পন্ন সিনেমা যেটাকে আমরা ভালো সিনেমা হিসেবে আখ্যা দিয়ে থাকি সেই সিনেমাই করছেন ফেরদৌস এখন। যেহেতু সিনেমা নির্মাণের সংখ্যা অনেক কমে গেছে, তাই ফেরদৌস সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করা, বিভিন্ন স্টেজ শোতে উপস্থাপনার কাজ নিয়েও বেশ ব্যস্ত রয়েছেন। ফেরদৌস ‘গঙ্গাযাত্রা’, ‘এককাপ চা’, ‘কুসুম কুসুম প্রেম’ সিনেমার জন্যও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads