• বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৭
‘ওয়েব সিরিজে নিয়মিত অভিনয় করব’

সংগৃহীত ছবি

শোবিজ

‘ওয়েব সিরিজে নিয়মিত অভিনয় করব’

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০১ মার্চ ২০২১

শোবিজে তিশা আছেন আরো দুজন। নুসরাত ইমরোজ তিশা ও তানজিন তিশা। তাসনুভা তিশা নামটাকে প্রতিষ্ঠিত করতে অর্ধযুগ লাগল তার। অনেকেই হয়তো দেখলে চিনত, নামেও জানত, তবে সেরা অভিনেত্রীদের কাতারে এলেন এবারই প্রথম। ‘আগস্ট ১৪’ তাকে ব্যাপক পরিচিতি দিয়েছে। সম্প্রতি ‘সেফকিপার চ্যানেল আই ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২০’-এ শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (ওয়েব সিরিজ) হিসেবে পুরস্কার পেয়েছেন ছোট পর্দার তারকা মুখ তাসনুভা তিশা। ‘আগস্ট ১৪’ নামের ওয়েব সিরিজে দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য জুরি বোর্ডের সদস্যরা তাকে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে নির্বাচিত করেন।

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ডিজিটাল প্ল্যাটফরমে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান ও শ্রেষ্ঠত্বের জন্য দেওয়া হলো ‘সেফকিপার চ্যানেল আই ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২০’। গত শুক্রবার রাতে চ্যানেল আইয়ের চেতনা চত্বরে আয়োজিত জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২২টি বিভাগে মোট ২৩টি পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

যেখানে ওয়েব সিরিজে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী শাখায় পুরস্কার জিতে নেন তাসনুভা তিশা। শিহাব শাহীনের আলোচিত ওয়েব সিরিজ ‘আগস্ট ১৪’ এর জন্য এই পুরস্কার পান তাসনুভা। এর মধ্যে দিয়ে ওয়েবে প্রথম কাজেই পেলেন স্বীকৃতি। স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত এই অভিনেত্রী।

পুরস্কার প্রাপ্তির পর নিজের অনুভূতি শেয়ার করেছেন সামাজিক মাধ্যমে। তাসনুভা বলেন, ‘আগস্ট ১৪’ আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং আর আলোচিত কাজ! শিহাব ভাই (শিহাব শাহীন) আমাকে নিয়ে যতটা কনফিডেন্ট ছিলেন আমি ততটাই ব্ল্যাঙ্ক! বার বার ভাইয়াকে জিজ্ঞেস করেছি ‘পারব তো?’ উনি বলতেন তুমিই পারবা! এত বড় এবং সেনসেটিভ প্রজেক্ট কখনো আমার করার সৌভাগ্য হবে ভাবিনি! শিহাব ভাইকে ধন্যবাদ দিলেও অনেক কম হবে কারণ উনি ছাড়া ‘তুশি’ চরিত্রটি আমাকে দিয়ে সম্ভব সেটা কেউ চিন্তাও করেনি। সিরিজটিতে বেশ কিছু অন্তরঙ্গ দৃশ্য আছে, সিগারেট খাওয়া, নেশা করার বিষয় শুরুতেই পরিচালক আমাকে এসব বলে নিয়েছেন।’ তিশা আরো বলেন, ‘শিহাব ভাইয়ের এই সততা আমাকে মুগ্ধ করেছে। এটা এমন না যে আমাকে বললেন আর আমিও করে ফেললাম। চরিত্রটা এসব ডিমান্ড করে বলেই আগেই বলে নিয়েছেন। ছবিতে মা-বাবাকে খুন করার দৃশ্য করতে গিয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হন তিশা। দৃশ্যটা দেখে অনেক দর্শকই ভয় পেয়েছে, শুটিংয়ে তিশার অবস্থা না জানি কী হয়েছিল? তিশা বলেন, আমার শরীরের লোম দাঁড়িয়ে যাচ্ছিল। এই অনুভূতিটা কাউকে বোঝাতে পারব না। মনিরা মিঠু আপা আর শহীদুজ্জামান সেলিম ভাইয়ের ওপর ছুরিকাঘাত করেছি বারবার, এটা যে কতটা লোমহর্ষক, আমি জানি। আমার নিজেরও মেয়ে আছে। আমিও মা-বাবার সন্তান। জানি না সেদিন দৃশ্যটা কীভাবে করেছি।’   

সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তাসনুভা আরো বলেন, প্রথম কাজের স্বীকৃতি অর্জন এক বিশাল অনূভুতি! পুরস্কার প্রাপ্তির পর এ রকম আরো ভালো কাজের অপেক্ষা বেড়ে গেল দ্বিগুণ! এখন থেকে ওয়েব সিরিজে নিয়মিত অভিনয় করব।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads