• শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
আবার বসন্ত বিলাপ

ছবিতে লাস্যময়ী শকুন্তলা দেবী চরিত্রে অভিনয় করেছেন মুনমুন সেন

সংরক্ষিত ছবি

টালিউড

আবার বসন্ত বিলাপ

  • প্রকাশিত ১৯ জুলাই ২০১৮

রামিজ আলি আহমেদ, কলকাতা থেকে

সম্প্রতি ওপার বাংলায় মুক্তি পেয়েছে মুনমুন সেন অভিনীত ছবি ‘আবার বসন্ত বিলাপ’। ইপ্সিতা রায় সরকারের কাহিনী, সংলাপ ও চিত্রনাট্যে ছবিটি পরিচালনা করেছেন পরিচালক জুটি রাজেশ দত্ত ও ইপ্সিতা রায় সরকার। একটি প্রকাশনী সংস্থাকে ঘিরে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। তিনটি বয়সের প্রেমকে এক সুতোয় বাঁধার চেষ্টা করেছেন ছবির পরিচালকদ্বয়। ছবিতে লাস্যময়ী শকুন্তলা দেবী চরিত্রে অভিনয় করেছেন মুনমুন সেন।

কমেডি ধাঁচের এ ছবিতে কমেডি দারুণ জমে উঠেছে। অসম্ভব শক্তিশালী কমেডি অভিনেতাদের অভিনয়ে হেসে লুটোপুটি খাওয়ার মতো অবস্থা তৈরি হয় প্রেক্ষাগৃহে। অনেক দিন পর দর্শকদের হাসতে হাসতে হল থেকে বেরিয়ে যেতে দেখা গেছে শো শেষে। সব মিলিয়ে ওপার বাংলার দর্শক ও সমালোচক দুই মহলেই প্রশংসা পেয়েছে ‘আবার বসন্ত বিলাপ’।

‘আবার বসস্ত বিলাপ’ একটি প্রকাশনী সংস্থা। সেই প্রকাশনী সংস্থার সিনিয়র প্রুফ রিডার অনাদি বাবু (খরাজ মুখোপাধ্যায়) অত্যন্ত ভুলোমনা। এজন্য ম্যানেজার পরান প্রিয় (পরান বন্দ্যোপাধ্যায়) তাকে সব সময় গালমন্দ করেন। এমনকি চাকরি থেকে সরিয়ে দেবেন বলেও ভয় দেখান। পরান বাবুর বয়স হয়ে গেলেও এখনো বিয়েটা করা হয়ে ওঠেনি। এই প্রেসে একদিন লাস্যময়ী শকুন্তলা দেবী (মুনমুন সেন) হাজির হন তার বই ছাপানো ও প্রকাশ করার জন্য। বোনের মেয়ে রাধিকাকে (দেবলীনা কুমার) মানুষ করতে গিয়ে শকুন্তলা দেবীরও বিয়ে করা হয়ে ওঠেনি। রাধিকা টিউশন পড়ে মেয়েলি স্বভাবের ডিম্পি (মীর) স্যারের কাছে। তারপর এমন জটিলতার মধ্য দিয়ে হাস্যরসের মাধ্যমে এগিয়ে চলে ছবির কাহিনী।

১৯৭৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও অপর্ণা সেন অভিনীত কমেডি ছবি ‘বসন্ত বিলাপ’। সে সময় ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন দীনেন গুপ্ত। ‘আবার বসন্ত বিলাপ’ ছবির নাম শুনে সেই ‘বসন্ত বিলাপ’ ছবির সিক্যুয়াল মনে হতে পারে। কিন্তু সেই ছবির সঙ্গে এই ছবির কোথাও কোনো মিল খুঁজে পাবেন না দর্শক। তাহলে কেন এই নাম? উত্তরে ইপ্সিতা রায় জানান- ‘বসন্ত বিলাপ নামের মধ্যে একটা নস্টালজিয়া আছে, প্রেম আছে, মজা আছে। সব কিছু মিলেই আমাদের এ ছবির নাম।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads