• বুধবার, ৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads

টালিউড

ভাইরাল ঋতুপর্ণা

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সুইমিং পুলের পাশে বসে রয়েছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। পরনে নীল রঙের বিকিনি এবং স্রাগ। নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে বিকিনি পরা সেই ছবি শেয়ার করতেই শুরু হয়ে যায় জোর শোরগোল।

টালিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রীর বিকিনি পরা ছবি সামনে আসার পর থেকেই উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠেন তার ভক্তরা। ঋতুপর্ণার ওই ছবি দেখে, কেউ বলতে শুরু করেন, তিনি এখনো ‘হট’। আবার কেউ বলতে শুরু করেন, এই বয়সে এখনো কীভাবে এত মোহময়ী রয়েছেন।

যদিও ঋতুপর্ণার ওই ছবি দেখে অনেকে সমালোচনাও শুরু করে দেন। তবে প্রশংসা বা সমালোচনা কোনো কিছুকেই বিশেষভাবে গায়ে মাখতে রাজি হননি ঋতুপর্ণা।

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে ঋতুপর্ণার নতুন ছবি বিদ্রোহিনী। এই সিনেমায় জিতু কমলের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করেন তিনি।

বাংলা ধারাবাহিক সাদা পায়রা (১৯৮৯) দিয়ে ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর অভিনয় জীবনের শুরু। তার অভিনীত প্রথম ছবি ‘শ্বেতপাথরের থালা’ মুক্তি পায় ১৯৯২ সালে। ছবিতে তিনি অভিনয় করেন সহ-অভিনেত্রীর চরিত্রে। তিনি তখন আধুনিক ইতিহাসে স্পেশালাইজেশনসহ এমএ প্রথম বর্ষের ছাত্রী। এরপর তাকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি। প্রভাত রায়ের এই ছবিটি সেই বছর শ্রেষ্ঠ বাংলা ছবি হিসেবে জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। সুজন সখী, নাগপঞ্চমী, মনের মানুষ ও সংসার সংগ্রাম প্রভৃতি তার প্রথম দিকের ছবিগুলো বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করে। মুম্বাইয়ে তিনি হেমা মালিনীর সঙ্গে মোহিনী নামে একটি টেলিফিল্মও করেন। এছাড়া তিসরা কৌন নামে অপর এক হিন্দি ছবিতেও তিনি নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেন।

ঋতুপর্ণ ঘোষের দহন (১৯৯৭), উৎসব (২০০০), অপর্ণা সেনের পারমিতার একদিন (২০০০) ও বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের মন্দ মেয়ের উপাখ্যান (২০০২) ছবিতে তার অভিনয় বিদগ্ধ মহলের প্রশংসা অর্জন করে। দহন ছবিতে ধর্ষণের শিকার এক নববিবাহিতা রোমিতা চরিত্রে অভিনয় করে তিনি ১৯৯৮ সালে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে অর্জন করেন জাতীয় পুরস্কার।

বাংলাদেশের ছবিতে অভিনয় করে সমান জনপ্রিয়তা ও খ্যাতি লাভ করেছেন ঋতুপর্ণা। তবে সাগরিকা চলচিত্রর জন্য ব্যাপক সমালোচনার মধ্য পড়েন। এই চলচ্চিত্রের জন্য সবাই তাকে অনেক খারাপ চোখে দেখেন। তিনি ওড়িশি ও মণিপুরি নৃত্যে পারঙ্গমা। তার নিজের ভাবনা আজ ও কাল নামে একটি নাচের দলও আছে। এই দল রবীন্দ্রনাথের চিত্রাঙ্গদা, শ্যামা, মায়ার খেলা প্রভৃতি নৃত্যনাট্য ও অন্যান্য আধুনিক ভাবনার নৃত্যানুষ্ঠান মঞ্চস্থ করে খ্যাতিলাভ করেছে। এছাড়া তিনি স্থাপন করেছেন প্রিজম এন্টারটেইনমেন্ট নামে একটি প্রযোজনা সংস্থাও।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads