• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬
ads
ডিসেম্বরে মূল্যস্ফীতি সামান্য কমেছে

সংগৃহীত ছবি

বাণিজ্য

ডিসেম্বরে মূল্যস্ফীতি সামান্য কমেছে

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০২ জানুয়ারি ২০১৯

ডিসেম্বর মাসে মূল্যস্ফীতির হার নভেম্বর থেকে সামান্য কমে ৫.৩৫ শতাংশ হয়েছে। নভেম্বর মাসে এই হার ছিল ৫.৩৭ শতাংশ। খাদ্য পণ্য এবং সাধারণ পণ্যের দাম কিছুটা কমায় মূল্যস্ফীতির হার হ্রাস পেয়েছে।

আজ বুধবার রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে মাসিক ভোগ্য পণ্যের মূল্য সূচক প্রকাশকালে পরিকল্পনা মন্ত্রী এমন তথ্য জানান।

সাধারণ মূল্য সূচক অক্টোবরে ছিল ৫.৪০, সেপ্টেম্বরে ছিল ৫.৪৩ এবং আগস্টে ছিল ৫.৪৮ শতাংশ। এ ছাড়া জুলাইতে ছিল ৫.৫১ শতাংশ, জুনে ৫.৫৪ শতাংশ, মে মাসে ছিল ৫.৫৭ শতাংশ,এবং এপ্রিলে ছিল ৫.৬৩ শতাংশ, মার্চে ৫.৬৮ শতাংশ, ফেব্রুয়ারিতে ছিল ৫.৭২ শতাংশ এবং জানুয়ারিত ছিল ৫.৮৮ শতাংশ।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী, ডিসেম্বরে খাদ্য পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে হয় ৫.২৮ শতাংশ। নভেম্বরে ছিল ৫.২৯ শতাংশ।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, আর্ন্তজাতিক বাজারে চিনি, দুধ,পামওয়েল তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমায় মূল্যস্ফীতি কমার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে গত দশ বছরের মধ্যে চিনির দাম সর্বনিম্ন পর্যায়ে। মূল্যস্ফীতি আরো কমে চলতি অর্থবছরে ৫.৫ শতাংশের মধ্যে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে বলে তিনি জানান।

বিবিএস’র তথ্য উপাত্তে দেখা যায়, পল্লী এলাকায় ডিসেম্বরে খাদ্য পণ্যের মূল্যস্ফীতি ছিল ৪.৮৪। নভেম্বরে ছিল ৫.০৬ শতাংশ। নগরে ডিসেম্বরে খাদ্য মূল্যস্ফীতি ছিল ৬.২৭ শতাংশ। নবেম্বরে ছিল ৬.৩২ শতাংশ। গত জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পযর্ন্ত বছরে গড়ে মূল্যস্ফীতি ছিল ৫.৫৫ শতাংশ। ২০১৭ সালে জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পযর্ন্ত ছিল ৫.৭০ শতাংশ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads