• মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
প্রতি ছয় জনের একজন ব্রিটিশ শিশু ঘরে নির্যাতিত

ব্রিটেনের লেবার পার্টি প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী ব্রিটেনে প্রতি ছয় জনের একজন শিশু ঘরেই নির্যাতিত হচ্ছে

প্রতীকী ছবি

যুক্তরাজ্য

প্রতি ছয় জনের একজন ব্রিটিশ শিশু ঘরে নির্যাতিত

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৫ জুলাই ২০১৮

যুক্তরাজ্যে প্রতি ছয়টিতে একটি শিশু নিজের ঘরেই নির্যাতনের শিকার হয়। এই হিসাবে দেশটিতে অন্তত ১৬ লাখ শিশু এ ধরনের ঝুঁকির মুখে রয়েছে। শুধু তাই নয়, দেশটির শিশুবিষয়ক কমিশনের হিসাব অনুযায়ী, দেশের অন্তত ২১ লাখ শিশুর এ মুহূর্তে বিশেষ সহযোগিতা প্রয়োজন। ব্রিটেনের লেবার পার্টি প্রকাশিত এই প্রতিবেদনটি দেশটির সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট প্রকাশ করেছে।

লেবার পার্টি জানিয়েছে, বর্তমানে দেশজুড়ে প্রায় ৫ লাখ ৭০ হাজার শিশুকে রাষ্ট্রীয় সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিদিন ২৭০টির বেশি শিশুকে সরকারি সহযোগিতা দিতে হয়। লেবার পার্টির শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী অ্যাঞ্জেলা রায়নার বলেন, বিষয়টি আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। শিশু সুরক্ষা সেবা থেকে অনিয়ন্ত্রিত উপায়ে ব্যয় কমানো এবং সরকারের ব্যয় সঙ্কোচন প্রকল্প ব্যর্থ হওয়ায় শিশুরা সবচেয়ে ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে। সরকারের নিজেদের পরিসংখ্যানই বলছে, ক্ষমতাগ্রহণের পর থেকে শিশুর সেবা খাতের ব্যয়ে দশগুণ অবনমন হয়েছে। ২০২০ সাল নাগাদ এই খাতে ২০ বিলিয়ন পাউন্ড ঘাটতি রয়েছে।

রিপোর্টে বলা হয়, ব্রিটেনে প্রায় ৮ লাখ ৯০ হাজার শিশুর বাবা-মা মানসিক সমস্যায় ভুগছে। এ ছাড়া ৮ লাখ ২৫ হাজার শিশু নিজের বাড়িতেই নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এদের মধ্যে আবার কারো বাবা-মা মাত্রাতিরিক্ত মদপানে আসক্ত। তবে সবচেয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে আছে, এক লাখ শিশু তিনটি সমস্যার মধ্যে দিনযাপন করছে। শিশুবিষয়ক সংস্থা বার্নাডোসের প্রধান সমন্বয়ক জাভেদ খান বলেন, শুধু গার্হস্থ্য নির্যাতনই নয়, তাদের অনেকে যৌন নির্যাতনের শিকারও হচ্ছে এবং এই সংখ্যাটাও আশঙ্কাজনক রকম বেশি। যার প্রভাব পড়ে তাদের পরবর্তী জীবনে। এভাবেই আমরা একটি মানসিক সমস্যা আক্রান্ত প্রজন্ম নির্মাণ করছি। স্থানীয় সরকারি সংস্থার ভাইস চেয়ারম্যান লর রয় পেরি বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে শিশু সংস্থায় সরকারি বাজেট বাড়ানো জরুরি হয়ে পড়েছে। এই অবস্থার মধ্যে চলতে থাকলে ২০২৫ সাল নাগাদ আমরা ৩০ লাখ ঘাটতি বাজেটে পড়ব। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে এখনই সময়োপযোগী পদক্ষেপ নিতে হবে সরকারকে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads