• রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
মার্কিনিদের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ঘরে থাকার নির্দেশ দিলেন ট্রাম্প

সংগৃহীত ছবি

যুক্তরাষ্ট্র

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব

মার্কিনিদের ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ঘরে থাকার নির্দেশ

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ৩১ মার্চ ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রে মহামারী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বিস্তারের ফলে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কেন্দ্রীয় নির্দেশনাবলী বাড়িয়ে জনগনকে আরও ৩০ দিন অর্থাৎ ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। সোমবার (৩০ মার্চ) ভয়েস অফ আমেরিকার খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত সপ্তাহে ‘ইস্টার’ উৎসবের পর দেশে স্বাভাবিক কার্যক্রম পুনরায় শুরু করার আশা ব্যক্ত করেছিলেন। তবে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা হুঁশিয়ার করে দেন, তা সংক্রমন বৃদ্ধিতে অআরো সহায়ক হবে এবং পরিস্থিতিকে আরো ভয়ঙ্কর করে তুলবে।

নিষেধাজ্ঞায় বয়স্ক লোকজন এবং যাদের অন্যান্য শারীরিক অসুস্থতা রয়েছে, তাদের ঘরে তাকবার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এবং সকল আমেরিকানদের প্রতি সামাজিক সমাবেশ পরিহার করা, ঘরে বসে কাজ করা, বার এবং রেস্তোরাঁ পরিহার করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এদিকে আমেরিকার শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্টনি ফুচি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, দেশে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এক লাখ বা তারও বেশি হতে পারে। এবার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও একই কথা বললেন। এদিকে চীন থেকে মেডিকেল সরঞ্জাম পৌঁছেছে যুক্তরাষ্ট্র্রে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী- যুক্তরাষ্ট্র্রে একদিনে নতুন করে আরও ২১ হাজার ৩৩৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৪৯০ এবং আক্রান্ত ১ লাখ ৪৩ হাজার।

নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২৮ থেকে ২৯ মার্চ সকাল পর্যন্ত নিউইয়র্ক নগরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১৬১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে পুরো রাজ্যে মৃতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে গেল। এছাড়া নগরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথমবারের মতো ১৮ বছর বয়সের নিচে একজনের মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরে অন্য আরও রোগ ছিল।

নিউইয়র্ক ফায়ার ডিপার্টমেন্টে (এফডিএনওয়াই) প্রথম অটোমেকানিক জেমস ভিলাচ্চো নামে এক কর্মীর করোনা ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে। ৫৫ বছর বয়সী এই কর্মী ২০১৪ সাল থেকে এই বিভাগে কাজ করছেন। তিনি স্ট্যাটান আইল্যান্ডে বসবাস করতেন। গভর্নর অ্যান্ডরু কুমো ২৯ মার্চ বলেছেন, নিউইয়র্কের পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে। বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২৯ মার্চ সকাল পর্যন্ত নিউইয়র্কে মৃতের সংখ্যা ছিল ৯৬৫ জন। একদিনেই আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ২০০ বেড়ে হয়েছে ৫৯ হাজার ৫১৩ জন। এর মধ্যে প্রায় ৩৩ হাজার ৭৬৮ জনই নিউইয়র্ক নগরের। এখনো প্রায় ৮ হাজার ৫০০ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দুই হাজার ৩৭ জন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভেন্টিলেটরে আছেন।

আর নিউইয়র্ক সিটির হাসপাতালগুলোতে দ্রুত বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হার। প্রতি সাড়ে ৯ মিনিটে একজনের মৃত্যু ঘটছে। এক দিন আগে এ হার ছিল প্রতি ১৭ মিনিট। ক্রমবর্ধমান মৃত্যুর ঘটনায় আতঙ্ক বিরাজ করছে নগরীতে। প্রায় দুই কোটি নিউইয়র্কবাসীর জন্য ছোট-বড়, সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে হাসপাতাল রয়েছে ১৮০টির মতো। হাসপাতালে বেড আছে ৫৩ হাজার। আইসিইউ আছে ৩ হাজার।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads