• শনিবার, ৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
সাংবাদিকের প্রশ্নে খেই হারালেন ট্রাম্প

সংগৃহীত ছবি

যুক্তরাষ্ট্র

সাংবাদিকের প্রশ্নে খেই হারালেন ট্রাম্প

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১২ মে ২০২০

হোয়াইট হাউজের নিয়মিত সংবাদ সম্মলনে মেজাজ ধরে না রাখতে পেরে খেই হারিয়ে ফেললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। চাইনিজ বংশোধভূত এক নারী সাংবাদিকের প্রশ্নে মুলত তিনি মেজার হারিয়ে ফেলেন। পরে তিনি তার ঝাল আরাক সিএনএন সাংবাদিকের ওপরও ঝাড়েন। দুই সাংবাদিকের সঙ্গে রীতিমতো ঝগড়া করে সংবাদ সম্মেলনের স্থান ত্যাগ করেন তিনি। ট্রাম্পের এই কাণ্ডের ভিডিও মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় ইন্টারনেটে।

দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, রোজ গার্ডেনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প সোমবার প্রায় এক ঘণ্টা সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। শুরুতে তিনি করোনা টেস্টের জন্য কত ডলার দিয়েছেন সেটি জানান। এই তথ্য জানাতে গিয়ে ১১ বিলিয়ন ডলারের জায়গায় ভুল করে ১ বিলিয়নের কথা বলেন।

স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা ১৫মিনিটে সিবিএস নিউজের হোয়াইট হাউজ প্রতিনিধি ওয়েজিয়া জিয়াং ট্রাম্পের কাছে প্রশ্ন করেন, ‘আপনি অনেকবার বলেছেন বিশ্বের অন্য দেশের চেয়ে টেস্টে আমেরিকা ভালো করছে।’ ট্রাম্প সঙ্গে সঙ্গে বলেন, ‘হ্যাঁ।’

চাইনিজ বংশোদ্ভূত জিয়াং কথা চালিয়ে যান, ‘বিষয়টি কেন বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা, যেখানে প্রতিদিন আমেরিকাবাসী প্রাণ হারাচ্ছে।’

জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘তারা পৃথিবীর সব জায়গায় প্রাণ দিচ্ছে। এই প্রশ্নটি সম্ভবত আপনার চীনকে করা উচিত। আমাকে নয়। ঠিক আছে?’

ট্রাম্প এরপর যখন অন্য এক সাংবাদিককে ডাকতে যান, তখন জিয়াং আবার বলেন, ‘স্যার এটা বিশেষ করে আমাকে কেন বলছেন?আমি কাউকে উদ্দেশ্য করে এটা বলছি না।’

এরপর ট্রাম্প বলেন, ‘যে আমাকে এমন বাজে প্রশ্ন করতে চায়, তাকেই বলছি।’ জিয়াং প্রতিবাদ করেন, ‘বাজে প্রশ্ন নয়।’

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে এসময় ট্রাম্পকে বেশ রেগে যেতে দেখা যায়। সিএনএনের সাংবাদিক কেইটলান কলিন্সকে ডাকার আগে ভ্রু কুচকে বলেন, ‘আর কেউ?’

কলিন্স মাইক্রোফোন ধরে বলেন, ‘আমার দুটো প্রশ্ন আছে।’ ট্রাম্প এবার বলেন, ‘না। অন্য কেউ।’ ‘কিন্তু আপনি আমাকে বলেছেন,’ কলিন্স বলতে থাকেন, ‘আমার দুটো প্রশ্ন।’

‘আরেক জন প্লিজ,’ ট্রাম্প এভাবে বললেও কলিন্স জবাব দেন, ‘কিন্তু আপনি আমাকে ডেকেছেন।’

‘ডেকেছি। কিন্তু আপনি উত্তর দেননি। এখন আমি পেছনের ওই তরুণীকে ডাকব।’ এরপর ট্রাম্প আর কাউকে ডাকেননি। সোজা রুম থেকে বেরিয়ে যান। অনেকেই একে বর্ণবাদী আচরণ বলে এর প্রতিবাদ করেছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads