• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

বিষাক্ত গ্যাসে নিহত রুশ ডাবল এজেন্ট সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ে ইউলিয়া

বিদেশ

ব্রিটেনে রুশ কূটনীতিক বহিঃস্কারে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১৫ মার্চ ২০১৮

ব্রিটেনে অবস্থানরত রুশ ডাবল এজেন্ট সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ে ইউলিয়ারকে বিষাক্ত গ্যাসের মাধ্যমে হত্যার জবাবে ২৩ রুশ কূটনীতিককে বহিস্কারের ঘোষণাকে সমর্থন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

বৃহস্পতিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে বলেন, ওই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে মস্কো কোনো ব্যাখ্যা দিতে অসম্মতি জানানোর কারণেই ওই বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শুরু থেকেই রাশিয়া ওই হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করে আসছিল।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মুখপাত্র রাশিয়াকে অভিযুক্ত দাবি করে বলেন, ওই হত্যাকাণ্ডের মস্কো সারা বিশ্বের নিরাপত্তাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছে।

অন্য এক বার্তায় ট্রাম্পের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডারস বলেন, ওয়াশিংটন নিশ্চিত করতে চায়, এ ধরনের ঘটনা ভবিষ্যতে আর কখনো ঘটবে না। এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার মাধ্যমে রাশিয়া বিশ্বের রাষ্ট্রগুলোর অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা এবং সার্বভৌমত্বকে হুমকির মুখে ফেলেছে।

রুশ ডাবল এজেন্ট সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ে ইউলিয়া ওপর কাণ্ডজ্ঞানহীন হামলা রাশিয়াই চালিয়েছে বলে ব্রিটেন মনে করে। কেননা ‘নোভিচক’নামের এই স্নায়ু বিকলকারী নার্ভ গ্যাসটি রাশিয়াই তৈরি করেছে। এটি রুশ অস্ত্রভাণ্ডারের অংশ।

সোমবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে টেরিজা মে ব্রিটেনের মাটিতে ভয়াবহ নার্ভ গ্যাস হামলার জন্য সরাসরি রাশিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, এমন কাণ্ডজ্ঞানহীন হামলা কেন চালানো হলো তার ব্যাখ্যা রাশিয়াকে দিতে হবে। তা না হলে যুক্তরাজ্য পাল্টা প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা নেবে। টেরিজা এ সময় তার বক্তব্যে আরো বলেন, এই হামলা কেবল সের্গেই স্ক্রিপাল ও তার মেয়ের ওপর হামলা নয়, এই হামলা ব্রিটেনের জনগণের ওপরও হামলা। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে সরাসরি কোনো প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়নি।

তবে ক্রেমলিনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, নার্ভ গ্যাস হামলা ব্রিটেনের মাটিতে ঘটেছে। সুতরাং এটি ব্রিটেনের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। মস্কোর এমন মন্তব্যের পরেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে ২৩ রুশ কূটনীতিককে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নেয় ব্রিটেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads