• বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

বিদেশ

এখনো নিজেকে দোষী মনে করেন ম্যাকডুগাল

  • প্রকাশিত ২৪ মার্চ ২০১৮

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ‘প্রেমের সম্পর্ক’ নিয়ে তার স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন সাবেক প্লেবয় মডেল কারেন ম্যাকডুগাল। ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেম ও যৌন সম্পর্কের কারণে তিনি ক্ষমা চান। এক যুগ আগে ট্রাম্পের সঙ্গে তার অন্তরঙ্গ সম্পর্ক ছিল। সে সময় ট্রাম্প চার সন্তানের জনক ছিলেন। একরম এক ব্যেক্তির সঙ্গে কেন যৌন সম্পর্কে জড়ালেন প্রশ্নে ম্যাকডুগাল বলেন, ‘সেজন্য আমি এখনো নিজেকে দোষী মনে করি। আমি দুঃখিত, এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি চাই না। অতীত স্মৃতি মনে পড়লে বুঝতে পারি আমি ভুল করেছি।’

ম্যাগডুগাল জানান, সম্পর্কের ব্যাপারে চুপ রাখতে তার সঙ্গে চালাকি করা হয়েছিল। আর বর্তমান সময়ে তাকে নানাভাবে চাপে রাখার চেষ্ঠা করছে হোয়াইট হাউজ। তবে সেই চাপে ভয় না পেয়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি শুরু করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ম্যাকডুগাল বলেছেন, ২০০৬ সালে ট্রাম্পের সঙ্গে ১০ মাসের ওই সম্পর্কের জন্য তিনি ফার্স্ট লেডির কাছে দুঃখ প্রকাশ করতে চান। প্রথমবার মিলিত হওয়ার পর ট্রাম্প টাকা দিতে চাওয়ায় কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ফেরার কথাও সাক্ষাৎকারে জানান সাবেক এ মডেল। যদিও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুরু থেকেই ম্যাকডুগালের সঙ্গে সম্পর্কের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ও যৌন হয়রানির আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা নারীদের মধ্যে কারেন ম্যাকডুগাল ছাড়াও আছেন স্টিফানি ক্লিফোর্ড ও সামার জারভোস।পর্নেো তারকা স্টিফানি ক্লিফোর্ড বলছেন, ২০০৬ সালে বেশ কয়েক মাস ট্রাম্পের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক ছিল তার। ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ওই সম্পর্কের ব্যাপারে মুখ না খুলতে ট্রাম্পের আইনজীবী এক লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিল বলেও দাবি এ অভিনেত্রীর।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads