• শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

বিদেশ

ভারতের সন্ত্রাসী তালিকায় পাকিস্তানের কূটনীতিক

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১০ এপ্রিল ২০১৮

প্রথমবারের মতো ভারতের সন্ত্রাসী তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে পাকিস্তানের এক কূটনীতিকের নাম। ভারতের জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার (এনআইএ) দাবি, শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর পাকিস্তানি দূতাবাসে থাকার সময় আমির জুবেইর সিদ্দিকী নামের ওই কূটনীতিক ভারতে হামলার ছক তৈরি করেছিলেন তিনি। তার সঙ্গে পাকিস্তানের দুই গোয়েন্দা কর্মকর্তার নামও রয়েছে মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায়।

এনআইএ’র দাবি, ২০১৪ সালে কলম্বোয় পাক হাইকমিশনে ভিসা কাউন্সিলর পদে কর্মরত থাকার সময় ভারতে হামলার পরিকল্পনা করেছিলেন আমির জুবেইর সিদ্দিকী। মুম্বাইয়ে ২৬/১১ এর হামলার মতো ভারতের বিভিন্ন শহরে হামলার ছক করেছিলেন তিনি। ভারতের সামরিক ছাউনি, পরমাণু কেন্দ্র, মার্কিন ও ইসরাইলের দূতাবাস ছিল তার হামলার লক্ষ্য।

সংস্থাটি জানায়, বিষয়টি প্রথম জানা যায় তামিলনাড়ু পুলিশ চর সন্দেহে ২০১৩ সালে জাকির হুসেন নামে শ্রীলঙ্কার এক নাগরিককে গ্রেফতার করলে জেরার মুখে জাকির জানিয়েছিলেন, আমিরের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। দুজনের মধ্যে বেশ কয়েকবার দেখাও হয়েছিল। জাকিরের দাবি, সেনা সদস্যদের গতিবিধি ও এ সংক্রান্ত বিষয়ে ছবি সংগ্রহ, শীর্ষ সেনা কর্মকর্তার ল্যাপটপ চুরি ও ভারতীয় জাল মুদ্রা সরবরাহের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল তাকে। এ ছাড়া দুই পাকিস্তানি নাগরিক যাতে জাল নথিপত্র নিয়ে ভারতে ঢুকতে পারেন তার ব্যবস্থা করার জন্য আমির তাকে নির্দেশ দিয়েছিলেন বলেও জাকির দাবি করেন।  এ ছাড়া অরুণ সেলাভারাজ, সিভাবালান ও থামীম আনসারি নামে আরো তিনজনকে ভাড়া করেছিলেন জুবেইর সিদ্দিকী। তাদের প্রত্যেককে পরে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী আটক করে।

ভারতের গোয়েন্দা সংস্থাটির দাবি, নিয়োগকৃতরা চেন্নাইয়ে মার্কিন কনসস্যুলেট, বেঙ্গালুরুতে ইসরাইলি কনস্যুলেট, বিশাখাপত্তমে পূর্বাঞ্চলীয় নৌ কমান্ডের হেডকোয়ার্টার্স এবং অন্যান্য বন্দরে হামলার পরিকল্পনা করে। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, এ ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র ভারতকে তথ্য দিয়েছে, যা পাকিস্তানি অফিসারদের শনাক্ত করতে ভারতীয় কর্মকর্তাদের সহায়তা করেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads