• মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬
ads

বিদেশ

সৌদিতে সালমানের প্রাসাদের বাইরে গোলাগুলি

ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি পুলিশের

  • প্রকাশিত ২২ এপ্রিল ২০১৮

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের রাজপ্রাসাদের বাইরে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। প্রাসাদের বাইরে একটি খেলনা ড্রোনকে গুলি করে ভূপাতিত করার দাবি করেছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাজপ্রাসাদের বাইরে ভারী গোলাগুলির ভিডিওচিত্র ছড়িয়ে পড়ার পর সৌদি বাহিনী এই দাবির কথা জানায়। সৌদি আরবের স্থানীয় সময় শনিবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটের দিকে ড্রোন ভূপাতিত করার ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। তবে গোলাগুলির সময় সৌদি বাদশাহ সালমান প্রাসাদে ছিলেন না বলে জানা গেছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ রিয়াদ পুলিশের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, শনিবার খুজুমা নিরাপত্তা চেকপোস্টের কাছে অননুমোদিত ছোট ড্রোন আকারের খেলনা শনাক্ত করার পর তার মোকাবিলা করা হয়েছে। তবে, ক্ষয়ক্ষতির কোনো খবর তাৎক্ষনিকভাবে পাওয়া যায়নি। এই ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থাটি।

এর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিওতে অন্তত ৩০ সেকেন্ড ধরে ভারী গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। কিন্তু এসব ভিডিওর যথার্থতা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারেনি আলজাজিরা, রয়টার্সসহ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। গোলাগুলির খবরের পর সৌদি রাজ পরিবারের বিদ্রোহের গুজব ছড়িয়ে পড়ে। একটি ভিডিওতে দেখা যায় অন্ধকার সড়কে পুলিশের দুটি গাড়ি মোতায়েন রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঊর্ধ্বতন সৌদি কর্মকর্তা ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান, ঘটনার সময় প্রাসাদে ছিলেন না বাদশাহ সালমান। ওই সময় তিনি রিয়াদের অন্য প্রান্ত দিরিয়া এলাকায় খামার বাড়িতে ছিলেন। সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিও সম্পর্কে ওই কর্মকর্তা বলেন, ড্রোন ভূপাতিত করা হয়েছে।

ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যম মেইল অনলাইন জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া গুজবে দাবি করা হয় সৌদি যুবরাজ সালমানকে নিরাপত্তার জন্য কাছের একটি সামরিক ঘাঁটির বাংকারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি।

২০১৭ সালের অক্টোবরে জেদ্দার রাজপ্রাসাদে এক বন্দুকধারী ঢুকে পড়ে গুলি ছোঁড়া শুরু করলে অন্তত দুই নিরাপত্তা রক্ষী নিহত হন। আহত হন আরও তিনজন। পরে ওই বন্দুকধারীকে গুলি করে হত্যা করে নিরাপত্তা বাহিনী। পরে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে ২৮ বছরের সৌদি নাগরিক মনসুর আল আমরি বলে শনাক্ত করে। কালাশনিকভ রাইফেল ও তিনটি মলোটোভ বোমা নিয়ে সৌদি প্রাসাদে ঢুকে পড়েছিল মনসুর।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads