• সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
গাজায় ফিলিস্তিনি নারীদের বিক্ষোভ

শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে বাসে করে মঙ্গলবার বিক্ষোভে অংশ নেয় নারীরা

ছবি : ইন্টারনেট

বিদেশ

গাজায় ফিলিস্তিনি নারীদের বিক্ষোভ

ইসরাইলি হামলায় আহত ১৩৪

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৫ জুলাই ২০১৮

অধিকার আদায়ের দাবিতে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনি নারীদের বিক্ষোভে ইসরাইলি হামলায় অন্তত ১৩৪ জন আহত হয়েছে। ইসরাইল সীমান্তের বেড়ার কাছে গত মঙ্গলবার এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এতে অংশ নেয় কয়েক হাজার নারী। খবর আলজাজিরা।

গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল কুদরা এক বিবৃতিতে জানান, বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলি সেনাবাহিনী গুলি চালায়। এতে বেশ কয়েকজন সাংবাদিকও আহত হয়েছেন। ভূমির অধিকার আদায়ে গত ৩০ মার্চ থেকে গাজায় যে কর্মসূচি শুরু হয়েছে তাতে এবারই সবচেয়ে বেশি নারী বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে। বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে অন্তত ১৩৮ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ছয় হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি।

শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে বাসে করে মঙ্গলবার বিক্ষোভে অংশ নেয় নারীরা। অনেক নারী শিশুদের নিয়েই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে। বিক্ষোভে অংশ নেওয়া রিম আবু ইরমানা নামে এক নারী বলেন, আমার মেয়ে যে প্রতিবাদ শুরু করেছিল আমি তা শেষ করতে এসেছি। তার হাতে তার ১৫ বছর বয়সী মেয়ের ছবি ছিল। গত ১৪ মে ওয়াসাল নামের ওই কিশোরী ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়। একই দিন আরো ৬০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়। তিনি আরো বলেন, এই বিক্ষোভ শান্তিপূর্ণ। আমরা শুধু আমাদের ভূমি ও অধিকারের দাবি জানাতে এখানে এসেছি।

উল্লেখ্য, ১৯৭৬ সালের ৩০ মার্চ ভূমি দখল করে ইহুদি বসতি নির্মাণের প্রতিবাদ করায় ৬ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করে ইসরাইল। পরের বছর ৩০ মার্চ থেকে ১৫ মে পর্যন্ত পরবর্তী ছয় সপ্তাহকে ভূমি দিবস হিসেবে পালন করে আসছে ফিলিস্তিনিরা। এবারের আন্দোলনে নারীদের অংশগ্রহণ উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। তাদের অংশগ্রহণের ব্যাপকতা ভূমি দিবসের কর্মসূচিকে করে তুলেছে আরো বেগবান। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার বিক্ষোভে অংশ নেয় কয়েক হাজার ফিলিস্তিনি নারী। তারা গাজার ওপর ইসরাইল ও মিসরের আরোপ করা অবরোধের বিরুদ্ধেও ক্ষোভ জানায়। ২০০৬ সালের নির্বাচনে হামাস জয়লাভ করার পর থেকে উপত্যকাটির ওপর অবরোধ আরোপ করে রাখা হয়েছে। দীর্ঘদিন অবরুদ্ধ থাকা উপত্যকাটি বর্তমানে বিশ্বের বৃহত্তম উন্মুক্ত কারাগারে পরিণত হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads