• বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫
ads
কাতার দখল ঠেকাতে গিয়ে মন্ত্রিত্ব হারান টিলারসন!

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব হারান রেক্স টিলারসন

সংরক্ষিত ছবি

বিদেশ

কাতার দখল ঠেকাতে গিয়ে মন্ত্রিত্ব হারান টিলারসন!

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৩ আগস্ট ২০১৮

কাতারের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানের পরিকল্পনা করেছিল প্রতিবেশী সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। গত বছর সৌদি জোটের সঙ্গে কাতারের কূটনৈতিক সঙ্কট শুরুর প্রথম দিকে এ পরিকল্পনা হয়। এটি ঠেকাতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব হারান রেক্স টিলারসন। যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক ‘দ্য ইন্টারসেপ্ট’ গত বুধবার এক প্রতিবেদনে এ দাবি করেন।

খবরে বলা হয়, আগ্রাসান ষড়যন্ত্রে প্রধান ভূমিকায় ছিলেন সৌদি ও আমিরাতের যুবরাজ। সৌদি চেয়েছিল আমিরাতের সহযোগিতায় তাদের পদাতিক সেনারা কাতারের ১০০ কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে পড়বে এবং রাজধানী দোহা দখল করে নেবে। কিন্তু কাতারের গোয়েন্দারা বিষয়টি আঁচ করতে পেরে তা টিলারসনকে অবহিত করে। টিলারসন এই পরিকল্পনা থেকে সরে আসতে সৌদি বাদশা সালমানের প্রতি আহ্বান জানান।

এ ছাড়া এ কাজের ভয়াবহতা সম্পর্কে দেশ দুটিকে অবহিত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিসকে বলেন। কথা না শুনলে দেশ দুটির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করারও হুমকি দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এ প্রতিরক্ষামন্ত্রী। এ কারণে দেশ দুটি কাতারে অভিযানের পরিকল্পনা থেকে সরে আসে। তবে কাতার ইস্যুতে টিলারসনের অবস্থানে ক্ষুব্ধ হয়ে দেশ দুটি তাকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ থেকে হটাতে জোর তদবির করে বলে অভিযোগ উঠেছে।

উল্লেখ্য, কয়েক মাস পর ব্রিটিশ ও যুক্তরাষ্ট্রে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোও সৌদি জোটের কাতার অভিযানের পরিকল্পনার বিষয়টি নিশ্চিত করে। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক উপদেষ্টা রবার্ট ম্যালি বলেন, ২০১৭ সালের গ্রীষ্মে কাতারের কর্মকর্তারা তাকে বলেছিলেন, তাদের দেশ সামরিক আগ্রাসনের ঝুঁকির মুখে রয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত এখনো উসকানি দিয়ে কাতারে সামরিক আগ্রাসন চালানোর প্রেক্ষাপট তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে দ্য ইন্টারসেপ্ট। কাতারের ওপর অবরোধ আরোপের পর থেকে আমিরাত বহুবার দেশটির আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে।

এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে একই দাবি করেছিলেন কাতারের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খালিদ বিন মুহাম্মাদ আল-আতিয়া। ওয়াশিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, কাতারকে অস্থিতিশীল করার জন্য রিয়াদ ও আবুধাবি সব ধরনের চেষ্টা করেছে। তারা আমাদের দেশের ভেতরে সামরিক হস্তক্ষেপেরও পরিকল্পনা করেছিল। তারা বিভিন্ন উপজাতিকে উসকানি দেওয়ার চেষ্টা করেছে। এ কাজে তারা মসজিদকে ব্যবহার করেছে। তারা কিছু পুতুল ব্যক্তিকে ক্ষমতায় বসানোর চেষ্টা করে। তবে তাদের সে চেষ্টা সফল হয়নি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads