• বুধবার, ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, ৩ মাঘ ১৪২৪
মার্কিন কংগ্রেসের প্রথম মুসলিম ও আদিবাসী নারীরা

ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত রাশিদা তালিব এবং সোমালীয় বংশোদ্ভূত ইলহান ওমর

সংগৃহীত ছবি

বিদেশ

মার্কিন কংগ্রেসের প্রথম মুসলিম ও আদিবাসী নারীরা

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৮ নভেম্বর ২০১৮

মার্কিন কংগ্রেসে প্রথমবারের মতো দুই মুসলিম ও দুই আদিবাসী নারী জয়ী হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। মুসলিম দু’জনের একজন ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত রাশিদা তালিব এবং অন্যজন সোমালীয় বংশোদ্ভূত ইলহান ওমর। এ ছাড়া আদিবাসী নারীদের একজন কানসাসের শেরিস ডেভিডস ও নিউ মেক্সিকোর ডেবরা হাল্যান্ড। তারা চারজনই ডেমোক্র্যাট দলের হয়ে জয় ছিনিয়ে নিয়ে এসেছেন। বিবিসি ও সিএনএনের খবর।

মধ্যবর্তী নির্বাচনে মিনেসোটা থেকে নির্বাচিত হন ইলহান ওমর এবং মিশিগানের ভোটাররা নির্বাচিত করেন রাশিদা তালিবকে। নির্বাচিত এই দুই ডেমোক্র্যাট প্রার্থীর জীবনের গল্পে বেশ মিল রয়েছে। দু’জনের পরিবারই শরণার্থী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে আসে। পরে নিজেদের যোগ্যতায় তারা আজকের অবস্থায় আসেন।

এক সাক্ষাৎকারে ওমর বলেছিলেন, ১২ বছর বয়সে তিনি যখন সোমালিয়া থেকে শরণার্থী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন তখনই রাজনীতির প্রতি তার আগ্রহ তৈরি হয়। আর এই আগ্রহটা তৈরি হয়েছিল দাদার কারণে। তার দাদা ডেমোক্র্যাটিক মতবাদে বিশ্বাসী ছিলেন। অন্যদিকে ৪২ বছর বয়সী ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত রাশিদা তালিবও ওমরের মতো প্রগতিশীল রাজনীতিসহ মানবাধিকার ও শ্রমিক অধিকার বিষয়ক নানা কর্মকাণ্ডে যুক্ত ছিলেন। ২০০৮ সালে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে মিশিগানের আইন পরিষদের সদস্য হয়ে নতুন ইতিহাস গড়েছিলেন রাশিদা। এক সাক্ষাৎকারে রাশিদা নির্বাচনে তার অংশগ্রহণ নিয়ে বলেন  ‘মুসলিম ভাই-বোনদের জন্য আমি লড়াই করছি; যারা অন্যায়, অবিচারের শিকার হয়ে অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়েছে।

এদিকে সিএনএন বলছে, শেরিস আমেরিকার আদিবাসী হো-চাঙ্ক জাতির মেয়ে, আর ডেবরা এসেছেন পুয়েবলো অব লাগুনা থেকে। ডেবরা গত জুন মাসে অনুষ্ঠিত পার্টির প্রার্থী বাছাই ভোটাভুটিতে জিতে ডেমোক্র্যাট পার্টির টিকেট পান। মঙ্গলবারের নির্বাচনে তিনি রিপাবলিকান জেনিস আর্নল্ড জোনসের মুখোমুখি হন। অপরদিকে কানসাসে আইনজীবী ও মিক্সড মার্শাল আর্ট খেলোয়াড় শেরিস লড়াই করেছেন রিপাবলিকান সাবেক কংগ্রেস সদস্য কেভিন ইয়োদেরের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads