• রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯, ১০ চৈত্র ১৪২৪
ads
অচলাবস্থা অবসানে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ভোট

ছবি : সংগৃহীত

বিদেশ

অচলাবস্থা অবসানে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদে ভোট

ট্রাম্পের জন্য বরাদ্দ না রেখেই বিল পাস

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৫ জানুয়ারি ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের টানা ১৩ দিনের আংশিক অচলাবস্থার অবসানে নিম্নকক্ষ বা হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে বাজেট বরাদ্দ নিয়ে নতুন বিল অনুমোদন পেয়েছে। স্থানীয় সময় গত বৃহস্পতিবার ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত এ কংগ্রেসে মোট ছয়টি বিল পাস হয়। তবে ওইসব বিলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রস্তাবিত মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জন্য কোনো বরাদ্দ রাখা হয়নি।

গত বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে নবগঠিত কংগ্রেসের অধিবেশন। ওই দিন নতুন কংগ্রেস সদস্যরা শপথগ্রহণ করেন। গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত মধ্যবর্তী নির্বাচনে নিম্নকক্ষে বেশি আসনে জয়ী হওয়ার পর ডেমোক্র্যাটরা এর নিয়ন্ত্রণ নেয়। গত বৃহস্পতিবার ন্যান্সি পেলোসিকে দ্বিতীয়বারের মতো স্পিকার নির্বাচিত করার পরই ডেমোক্র্যাটরা তাদের বিল উত্থাপন করে। প্রতিনিধি পরিষদে শাট ডাউন নিরসন সংক্রান্ত ছয়টি এবং ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত হোমল্যান্ড সিকিউরিটি দফতরকে বরাদ্দ দেওয়া সংক্রান্ত একটি বিল পাস হয়।

প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে বিলটি পাস হয়ে গেলেও, তা সিনেটে বাধার মুখে পড়ার আশঙ্কা রয়েছেই। সেখানে রিপাবলিকান সিনেটররা এখনো সংখ্যাগরিষ্ঠ। তা ছাড়া এ বিষয়ে হুমকি দিয়ে ট্রাম্প আগেই জানিয়েছিলেন, তার প্রস্তাবিত যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্ত প্রাচীর নির্মাণের জন্য বাজেট বরাদ্দে তহবিল নেই এমন কোনো বিল তিনি স্বাক্ষর করবেন না। ট্রাম্পের ওই হুমকি উপেক্ষা করেই গত বৃহস্পতিবার নতুন প্রতিনিধি পরিষদের প্রথম দিন সীমান্ত প্রাচীরের জন্য তহবিল না রেখে নতুন বাজেট বরাদ্দ বিল উত্থাপন এবং তা অনুমোদন পায়।

এ বিষয়ে হাউজ স্পিকার ডেমোক্র্যাট নেতা ন্যান্সি পেলোসি স্পষ্ট করেই বলেন, নতুন বিলে সীমান্ত প্রাচীরের জন্য কোনো তহবিল নেই। তবে সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার জন্য ১৩০ কোটি মার্কিন ডলার এবং সীমান্তে অন্যান্য নিরাপত্তা প্রয়োজনে তিন কোটি মার্কিন ডলার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। প্রতিনিধি পরিষদে অনুমোদন পাওয়া দুই স্তরের ওই বিলে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি অধিদফতরের ব্যয় নির্বাহের জন্য যে হারে তহবিল দেওয়া হতো আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সেভাবেই দিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব রাখা হয়। দ্বিতীয় স্তরে কৃষি, স্বরাষ্ট্র, পরিবহন, বাণিজ্য এবং বিচার বিভাগের মতো যেসব অধিদফতর তহবিলের অভাবে অচল হয়ে পড়েছে সেগুলোর জন্য চলমান অর্থবছরের শেষ পর্যন্ত (আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর) তহবিলের জোগান দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত উচ্চকক্ষে নতুন বিলের কোনো ভবিষ্যৎ নেই বলে ধারণা করা হচ্ছে। সব মিলে শাট ডাউন নিরসন প্রশ্নে অনিশ্চয়তা এখনো কাটছে না। স্থানীয় সময় গতকাল শুক্রবার আবারো দু’পক্ষের মধ্যে আলোচনার কথা রয়েছে।

মার্কিন অর্থবছর শুরু হয় ১ অক্টোবর। তার আগেই বাজেট অনুমোদন করিয়ে নেওয়ার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকলেও সমঝোতার অভাবে কখনো কখনো মার্কিন কংগ্রেস তা পাস করাতে ব্যর্থ হয়। এমন অবস্থায় অস্থায়ী বাজেট বরাদ্দের মধ্য দিয়ে সরকার পরিচালনার তহবিল জোগান দেওয়া হয়। অস্থায়ী এই বাজেট বরাদ্দের ক্ষেত্রে দুই কক্ষের অনুমোদনসহ প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষরের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকারের তিন চতুর্থাংশ কার্যক্রম পরিচালনার অর্থ বরাদ্দ করা আছে। বাকি এক চতুর্থাংশের বাজেট ফুরিয়ে যাওয়ায় অচলাবস্থা ঠেকাতে গত ২১ ডিসেম্বর নতুন অস্থায়ী বাজেট বরাদ্দ ছিল অপরিহার্য। তবে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের বরাদ্দ প্রশ্নে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের মধ্যে সমঝোতা না হওয়ায় সৃষ্টি হয় ‘অচলাবস্থা’। বরাদ্দ কম পড়ে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ১৫টি কেন্দ্রীয় দফতরের মধ্যে ৯টিতে আংশিক শাট ডাউন শুরু হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads