• শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
ads
ক্রাইস্টচার্চে ছেলের জানাজায় যোগ দিতে গিয়ে মায়ের মৃত্যু

ছবি : সংগৃহীত

বিদেশ

ক্রাইস্টচার্চে ছেলের জানাজায় যোগ দিতে গিয়ে মায়ের মৃত্যু

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৩ মার্চ ২০১৯

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ৩৮ বছর বয়সী কামেল দারউইশের জানাজায় যোগ দিতে হার্ট অ্যাটাকে মারা গেলেন তার মা সৌদ আব্দেলফাত্তাহ মোহাইসেন আদওয়ান।

শনিবার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে সিডনিভিত্তিক জর্ডানিয়ান অ্যাম্বাসির এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানান নিউজিল্যান্ডের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম এনজেড হেরাল্ড।

দারউইশের পারিবারিক বন্ধু ইয়াসের মোহাম্মদ জানান, ৬৫ বছর বয়সী এই বৃদ্ধা ছেলেকে শেষবারের মতো দেখতে গতকাল জর্ডান থেকে নিউজিল্যান্ডে পৌঁছান। ছেলে হারানোর শোক সইতে না পেরে আজ সকালে হার্ট অ্যাটাকে তিনি মারা গেছেন। তার মরদেহ জর্ডানে নেয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তিন সন্তানের বাবা দারউইশ আল নূর মসজিদে নিহত হন। গত বছর তিনি জর্ডান থেকে নিউজিল্যান্ডে গিয়ে তার বড় ভাইয়ের সঙ্গে একটি ডেইরি ফার্মে কর্মী হিসেবে যোগ দেন। তার স্ত্রী ও সন্তানরা দেশটির ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন।

গত ১৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের সাউথ আইল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরে আল নূর এবং লিনউড মসজিদে পরপর হামলা করে ৫০ জনকে নিহত এবং ৫০ জনকে আহত করেছেন ব্রেনটন ট্যারেন্ট নামের এক ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক। হামলার ৩৬ মিনিট পর তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় স্থানীয় পুলিশ।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন এটাকে সন্ত্রাসী হামলা বলে উল্লেখ করেন। পরে তিনি দেশটির সংসদের একটি বিশেষ অধিবেশনে বলেন, মসজিদে হামলাকারীকে সর্বোচ্চ শাস্তি ভোগ করতে হবে। তিনি অনেক কিছু ভাবতে পারেন কিন্তু কুখ্যাতি ছাড়া কিছুই পাননি। আমি কখনোই তার নাম মুখে নেবো না।

গত ২২ মার্চ তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অনুষ্ঠিত অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কোঅপারেশনের (ওআইসি) নির্বাহী কমিটির একটি জরুরি বৈঠকে বক্তব্য প্রদানের সময় নিউজিল্যান্ডের উপপ্রধানমন্ত্রী উইনস্টোন পিটার্স জানান, ব্রেনটন ট্যারেন্টকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads