• বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৫
ads
জার্মানির ডুসেলডর্ফে নির্মিত হচ্ছে শহীদ মিনার

ছবি : সংগৃহীত

বিদেশ

জার্মানির ডুসেলডর্ফে নির্মিত হচ্ছে শহীদ মিনার

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৯ মে ২০১৯

জার্মানির অন্যতম বৃহৎ শহর ডুসেলডর্কে নির্মিত হবে শহীদ মিনার, যার মাধ্যমে মাতৃভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় বাংলার মানুষের সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের গৌরবগাথা বিমুগ্ধ করবে ইউরোপবাসীদের।

সম্প্রতি  জার্মানির বৃহত্তম পোর্ট ডুসেলডর্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের অনারারি কাউন্সিলর হাসনাত মিয়া ও ডুসেলডর্কের লর্ড মেয়র থমাস জেইসেলের মধ্যে অনুষ্ঠিত এক সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ায় লর্ড মেয়র তার কার্যালয়ে হাসনাত মিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান উপলক্ষে এই সভার আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে লর্ড মেয়রের কার্যালয় বাংলাদেশ ও জার্মানির জাতীয় পতাকা দিয়ে সুসজ্জিত করা হয়। ওই সভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন নর্থ-রেইন ওয়েস্টফালিয়া স্টেটের মিনিস্টার প্রেসিডেন্ট আরমিনলসেট। সভায় লর্ড মেয়র বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক ও উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, আগামী দিনে বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে সহযোগিতা ও গভীর সম্পর্ক আরো বৃদ্ধি পাবে।

জনাব হাসনাত মিয়ার প্রস্তাবকে সমর্থন করে লর্ড মেয়র আশ্বাস দেন, শিগগিরই এই ঐতিহাসিক শহরে বাংলাদেশের মানুষের ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়ার স্মৃতি ধরে রাখতে শহরের একটি উল্লেখযোগ্য স্থানে শহীদ মিনার নির্মাণে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হবে।

বৈঠকে এই মর্মে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ডুসেলডর্ককে ঢাকার অফিসিয়াল পার্টনার সিটি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা হবে এবং শিগগিরই এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হবে। এ ছাড়া এই বছরের শেষের দিকে আয়োজিত বিশ্ব মেয়র সম্মেলনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও সাঈদ খোকনকে লর্ড মেয়রের পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। সভায় হাসনাত মিয়া লর্ড মেয়রকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি স্মারকগ্রন্থ উপহার দেন।

জার্মানির এই বৃহত্তম প্রদেশের রাজধানী ডুসেলডর্ক জার্মানির ব্যাংকিং, টেক্সটাইল, কেমিক্যাল, আইটি, শিক্ষা ও মেটাল ইঞ্জিনিয়ারিংসহ সব ধরনের জাতীয় অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads